‘ফুলবাড়ী চুক্তি’ বাস্তবায়নের দাবিতে সিলেটে মানববন্ধন

২০০৬ সালের ২৬ আগস্ট ফুলবাড়ীতে খনি এলাকায় সমাবেশে তৎকালীন বিডিআরের গুলিতে স্থানীয় তিন ব্যক্তি নিহত ও আহত হন দুই শতাধিক। পরে পরিস্থিতি সামাল দিতে সরকার তেল-গ্যাস কমিটির সঙ্গে চুক্তি করে। সেই চুক্তির অন্যতম শর্ত ছিল, তৎকালীন এশিয়া এনার্জি কোম্পানিকে (বর্তমানে জিসিএম বা গ্লোবাল কোল ম্যানেজমেন্ট) দেশ থেকে বহিষ্কার ও তাদের বিচার করা এবং উন্মুক্ত খননপদ্ধতিতে কয়লা উত্তোলন না করা। ১৪ বছরেও এই চুক্তি বাস্তবায়িত হয়নি।

‘ফুলবাড়ী চুক্তি’ বাস্তবায়নের দাবিতে সিলেটে মানববন্ধন। আজ বুধবার বিকেলে সিলেটের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে।
‘ফুলবাড়ী চুক্তি’ বাস্তবায়নের দাবিতে সিলেটে মানববন্ধন। আজ বুধবার বিকেলে সিলেটের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে।প্রথম আলো
বিজ্ঞাপন

যুক্তরাজ্যভিত্তিক কোম্পানি গ্লোবাল কোল ম্যানেজমেন্টকে (জিসিএম বা সাবেক এশিয়া এনার্জি) বাংলাদেশ থেকে বহিষ্কার করে অবিলম্বে ‘ফুলবাড়ী চুক্তি’ বাস্তবায়ন করার দাবি জানিয়েছে তেল-গ্যাস–খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি সিলেট জেলা শাখা।

‘ফুলবাড়ী দিবস’-এর ১৪তম বার্ষিকী উপলক্ষে আজ বুধবার বিকেল পাঁচটায় সিলেটের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে মানববন্ধন করে এই দাবি জানিয়েছেন জাতীয় কমিটির সিলেট জেলা শাখার নেতারা। এর আগে ফুলবাড়ী ট্র্যাজেডিতে নিহত ব্যক্তিদের স্মরণে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তেল-গ্যাস–খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সিলেট জেলা শাখা আহ্বায়ক প্রবীণ বাম রাজনীতিবিদ মোহাম্মদ আরশ আলীর সভাপতিত্বে ও সদস্যসচিব আনোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য দেন সাম্যবাদী দল সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক কমরেড ধীরেন সিংহ, বাসদ (মার্ক্সবাদী) সিলেট জেলার আহ্বায়ক উজ্জ্বল রায়, বাসদ জেলা সমন্বয়ক আবু জাফর, গণতন্ত্রী পার্টি জেলার সাধারণ সম্পাদক জুনেদুর রহমান, সিপিবি জেলার যুগ্ম সম্পাদক খায়রুল হাছান, ওয়ার্কার্স পার্টি জেলার সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য হিমাংশু মিত্র, ভাসানী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক চৌধুরী, বাসদ জেলা সদস্য প্রণব জ্যোতি পাল, বাসদ (মার্ক্সবাদী) পাঠচক্র ফোরামের সদস্য নিরঞ্জন দাস প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
ফুলবাড়ী আন্দোলনে দায়ের করা সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, রামপাল-রূপপুরসহ প্রাণবিনাশী স্বাস্থ্যঝুঁকিপূর্ণ প্রকল্প বাতিল করে করোনা মোকাবিলাসহ সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা খাত প্রতিষ্ঠা, উত্তরবঙ্গসহ সারা দেশে সুলভে সার্বক্ষণিক গ্যাস ও বিদ্যুৎ নিশ্চিত করতে জাতীয় কমিটি প্রস্তাবিত মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে হবে।
সিলেটের মানববন্ধনে বক্তারা

মানববন্ধনে বলা হয়, ২০০৪ সালে অনুমোদন পাওয়ার পর উন্মুক্ত খননপদ্ধতিতে দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে কয়লা উত্তোলনের চেষ্টা করে এশিয়া এনার্জি। প্রতিষ্ঠানটিকে তৎকালীন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ৯২ শতাংশ মালিকানা দিয়ে কয়লা উত্তোলনের অনুমতি দিয়েছিল। উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা উত্তোলন ও রপ্তানির বিরোধিতা করে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি আন্দোলন শুরু করে এশিয়া এনার্জির বিরুদ্ধে। এই আন্দোলনের একপর্যায়ে ২০০৬ সালের ২৬ আগস্ট ফুলবাড়ীতে খনি এলাকায় সমাবেশ ডাকা হয়েছিল। সমাবেশে তৎকালীন বিডিআরের (বর্তমানে বিজিবি) গুলিতে স্থানীয় তিন ব্যক্তি নিহত হন ও আহত হন দুই শতাধিক। পরে পরিস্থিতি সামাল দিতে সরকার তেল-গ্যাস কমিটির সঙ্গে চুক্তি করে।


‘ফুলবাড়ী চুক্তি’ নামে পরিচিত সেই চুক্তির অন্যতম শর্ত ছিল, এশিয়া এনার্জিকে দেশ থেকে বহিষ্কার ও তাদের বিচার করা এবং উন্মুক্ত খননপদ্ধতিতে কয়লা উত্তোলন না করা।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

১৪ বছরেও এই চুক্তি বাস্তবায়িত হয়নি উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, উন্নয়নের নামে প্রাণ-প্রকৃতি-সম্পদ, জনস্বাস্থ্য-জনজীবন ও জীবিকার বিপরীতে মুনাফা-অন্ধ তৎপরতায় বিশ্বের বাস্তুসংস্থান, নদী-সমুদ্র-জলবায়ু আক্রান্ত। যেসব প্রকল্প প্রাণ–প্রকৃতি, জনস্বাস্থ্য, প্রাকৃতিক সম্পদ ও জননিরাপত্তা বিপন্ন করে, সেগুলো প্রত্যাখ্যান করে মুনাফার বদলে মানুষকে গুরুত্ব দেওয়ার দাবি উঠেছে বিশ্বজুড়ে। ফুলবাড়ী আন্দোলন এই দাবিতেই ১৪ বছর ধরে প্রতিরোধ জাগ্রত রেখেছে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সিলেটের মানববন্ধন থেকে ফুলবাড়ী আন্দোলনে দায়ের করা সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, রামপাল-রূপপুরসহ প্রাণবিনাশী স্বাস্থ্যঝুঁকিপূর্ণ প্রকল্প বাতিল করে করোনা মোকাবিলাসহ সর্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা খাত প্রতিষ্ঠা, উত্তরবঙ্গসহ সারা দেশে সুলভে সার্বক্ষণিক গ্যাস ও বিদ্যুৎ নিশ্চিত করতে জাতীয় কমিটি প্রস্তাবিত মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের দাবি জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন