বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সুলতানপুর গ্রামের হাওরে আউশ ধান কাটার কাজে শ্রমিক নিযুক্ত করা নিয়ে দুপুরে গ্রামের মাতাব মিয়ার সঙ্গে সুলতান মিয়ার কথা-কাটাকাটি হয়। এই বচসার জেরে বিকেলে দুই পক্ষের লোকজন লাঠিসোঁটা নিয়ে জড়ো হয়। একপর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন লিয়াকতকে আহত অবস্থায় সন্ধ্যায় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

গ্রামের দুজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার একপর্যায়ে লিয়াকত মিয়াকে প্রতিপক্ষের কয়েকজন লাঠি দিয়ে মাথায় উপর্যুপরি আঘাত করে পালিয়ে যান। ঘটনাস্থলে অবচেতন অবস্থায় পড়ে থাকেন লিয়াকত। স্থানীয় লোকজন লিয়াকতকে আহত অবস্থায় সন্ধ্যায় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

ফেঞ্চুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাফায়েত হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, নিহত কৃষকের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রক্রিয়া চলছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে কোনো পক্ষকে সেখানে পাওয়া যায়নি। হামলাকারী ব্যক্তিদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন