বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ভারপ্রাপ্ত প্রশাসনিক কর্মকর্তা জহির আহমদ মজুমদার জানান, একটি রিটের পরিপ্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ গত ২৮ অক্টোবর কুমিল্লা, চাঁদপুর, নোয়াখালী, ফেনী, চট্টগ্রাম ও রংপুর জেলায় গত ১৩ অক্টোবর থেকে ১৮ অক্টোবর পর্যন্ত হিন্দু সম্প্রদায়, তাদের সম্পত্তি ও তীর্থস্থানে সাম্প্রদায়িক হামলার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট জেলার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে বিচার বিভাগীয় তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দেন। এর আলোকে সরেজমিনে পরিদর্শনের মধ্য দিয়ে ফেনীর ঘটনায় তদন্ত কার্যক্রম শুরু হয়।

তদন্ত কমিটিতে রয়েছেন ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. সিরাজ উদ্দিন, কামরুল হাসান ও ফাতেমা তুজ জোহরা। এ সময় ফেনীর আদালত পুলিশের পরিদর্শক মো. গোলাম জিলানী সঙ্গে ছিলেন। পরিদর্শনের সময় আশ্রমের সেবায়েত, মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও সম্পাদকেরা উপস্থিত ছিলেন।

গত ১৬ অক্টোবর রাতে ফেনীর সংঘর্ষের একপর্যায়ে ট্রাংক রোডের শ্রীশ্রী জয়কালী মন্দির, বড় বাজারের রাজকালী মন্দির, কালীপাল গাজীগঞ্জ মহাপ্রভুর আশ্রম, তাকিয়া রোডে হিন্দুদের বেশ কিছু দোকানপাটে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনায় জড়িত অভিযোগে পুলিশ, র‌্যাব ও মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে ফেনী মডেল থানায় চারটি পৃথক মামলা করা হয়। র‌্যাব, সিআইডি ও পুলিশের অভিযানে এযাবৎ ৩৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ১০ জন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন