default-image

ফেনীতে র‌্যাবের অভিযানে একটি বিদেশি পিস্তল, তিনটি গুলিসহ স্থানীয় যুবলীগের এক কর্মী গ্রেপ্তার হয়েছেন। মো. শাফায়েত উল্যাহ (২৫) নামের ওই ব্যক্তি ফেনী সদর উপজেলার ফরহাদনগর ইউনিয়নের নৈরাজপুর গ্রামের বাসিন্দা। গতকাল সোমবার রাত ১০টার দিকে ফেনী সদর উপজেলার মধ্যম রামপুর এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কাছ থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, কোনো পদপদবি না থাকলেও শাফায়েত উল্যা এলাকায় একজন প্রভাবশালী যুবলীগ নেতা। তিনি এর আগে ফরহাদনগর ইউনিয়নের নৈরাজপুর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন।

একই রাতে র‌্যাবের একই দলের অভিযানে সদর উপজেলার মোহাম্মদ আলী বাজার এলাকায় একই মহাসড়কের কাছ থেকে মো. রিয়াদ (২০) নামের এক মাদক বিক্রেতা ২৫ বোতল ফেনসিডিলসহ গ্রেপ্তার হয়েছেন। রিয়াদ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার বাসিন্দা।

র‍্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে শাফায়েত উল্যাহ মাদক ব্যবসা, অবৈধ অস্ত্র ব্যবসা ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত বলে স্বীকার করেছেন।

দুজনের বিরুদ্ধে ফেনী সদর মডেল থানায় অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য আইনে পৃথক মামলা দায়েরের পর পুলিশে সোপর্দ করা হয়। আজ মঙ্গলবার আদালতের মাধ্যমে তাঁদের জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

র‍্যাব জানায়, সোমবার রাত ১০টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাব-৭ ফেনী ক্যাম্পের একটি দল ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ধরে ফেনী সদর উপজেলার মধ্যম রামপুর এলাকায় অভিযানে যায়। এ সময় র‍্যাব সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে যুবলীগ কর্মী মো. শাখাওয়াত উল্যাহ দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন। তাঁকে ধাওয়া করে আটকের পর তাঁর শরীর তল্লাশি করে একটি বিদেশি পিস্তল, তিনটি গুলি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তাঁর বিরুদ্ধে ফেনী মডেল থানায় অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। র‍্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে শাফায়েত উল্যাহ মাদক ব্যবসা, অবৈধ অস্ত্র ব্যবসা ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত বলে স্বীকার করেছেন।

অপর দিকে একই রাতে একই মহাসড়ক ধরে ফেনী সদর উপজেলার মোহাম্মদ আলী বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২৫ বোতল ফেনসিডিলসহ মো. রিয়াদকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-৭ ফেনী ক্যাম্পের দলটি। রিয়াদের বিরুদ্ধে ফেনী মডেল থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়েরের পর তাঁকেও পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

র‍্যাব-৭ ফেনী ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুর রহমান একই রাতে পৃথক অভিযানে দুজনকে গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন