ফেসবুকে নারীর আপত্তিকর ছবি ছাড়ার অভিযোগে দরজি কারাগারে

যৌন হয়রানি
প্রতীকী ছবি

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এক নারীর আপত্তিকর ছবি ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে হাফিজুর রহমান (৩৮) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার রাতে উপজেলার একটি বাজার থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি পেশায় দরজি।

এর আগে ভুক্তভোগী নারী (২৯) গতকাল শুক্রবার রাতে হাফিজুরকে আসামি করে সরিষাবাড়ী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন। সরিষাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর রকিবুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলার এজাহার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, হাফিজুর ছয় মাস ধরে ওই বাজারে দরজির কাজ করে আসছেন। ওই নারী তাঁর কাছে জামা বানাতে আসেন। এই পরিচয়ের সূত্র ধরে দুজনের মধ্যে মুঠোফোনে কথাবার্তা হয়ে আসছিল। একপর্যায়ে দরজি হাফিজুর ফেসবুক থেকে ওই নারীর কিছু ছবি সংগ্রহ করে তাতে প্রযুক্তির মাধ্যমে নিজের ছবি জুড়ে দিয়ে বিকৃত করেন। সেই সব আপত্তিকর ছবির কথা বলে ওই নারীর কাছে টাকা দাবি করেন।

দরজি হাফিজুর ফেসবুক থেকে ওই নারীর কিছু ছবি সংগ্রহ করে তাতে প্রযুক্তির মাধ্যমে নিজের ছবি জুড়ে দিয়ে বিকৃত করেন।

ওই নারী বিষয়টি এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানান। তাঁরা দরজি হাফিজুর রহমানকে শাসান। এতে হাফিজুর ক্ষুব্ধ হয়ে আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে ছেড়ে দেন। এ ঘটনায় ওই নারী বাদী হয়ে শুক্রবার রাতে সরিষাবাড়ী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন। রাতেই পুলিশ মামলার আসামি দরজি হাফিজুরকে গ্রেপ্তার করে।

ওই নারী প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমি দরজির শাস্তি দাবি করি। দরজি যেন আর কোনো নারীর সম্মান নষ্ট করতে না পারে।’

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সরিষাবাড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আরিফুল ইসলাম বলেন, হাফিজুরকে আজ শনিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।