default-image

যশোর সদর উপজেলায় ভাতিজার ধারালো বঁটির কোপে আবুল কাশেম (৬০) নামের এক ব্যক্তি খুন হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে সদর উপজেলার ভাতুড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত অভিযোগে মো. আলালকে (৩৫) আটক করেছে পুলিশ।
নিহত আবুল কাশেম সদর উপজেলার ভাতুড়িয়া গ্রামের মোকসেদ আলীর ছেলে। আটক মো. আলাল একই গ্রামের রওশন আলীর ছেলে। তাঁরা সম্পর্কে আপন চাচা-ভাতিজা। পুলিশ জানায়, মো. আলাল মানসিক ভারসাম্যহীন।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানায়, আজ ভোরে আবুল কাশেম স্থানীয় নারায়ণপুর মসজিদ থেকে ফজরের নামাজ পড়ে বাড়ির পাশে ভাতুড়িয়া বাজারে একটি দোকানে চা খেতে যান। সকাল পৌনে সাতটার দিকে সেখানে উপস্থিত হন আবুল কাশেমের ভাইয়ের ছেলে মো. আলাল। এ সময় একটি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুজনের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে আলাল দৌড়ে বাড়ি থেকে ধারালো বঁটি নিয়ে এসে চাচা আবুল কাসেমের বুকের বাঁ পাশে কোপ দেন। এতে আবুল কাশেম গুরুতর জখম হন। স্থানীয় লোকজন তাৎক্ষণিকভাবে তাঁকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সকাল ৭টা ২০ মিনিটের দিকে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।
কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, মানসিক ভারসাম্যহীন ভাতিজার বঁটির কোপে চাচা আবুল কাশেম নিহত হয়েছেন। মরদেহ উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ভাতিজা মো. আলালকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন