বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে বিশেষ গণটিকা কার্যক্রমের আওতায় জেলায় নিয়মিত টিকাদান কেন্দ্রসহ ১৫৫টিতে মঙ্গলবার ১ লাখ ৭৮ হাজার ৫০০ মানুষকে সিনোফার্ম টিকার প্রথম ডোজ প্রদানের উদ্যোগ নেওয়া হয়। এর মধ্যে জেলার ১০৯টি ইউনিয়নের প্রতিটিতে ১ হাজার ৫০০ করে ১ লাখ ৬৩ হাজার ৫০০ এবং বগুড়া পৌরসভার ২১টি ওয়ার্ডে ১০ হাজার ৫০০, শেরপুর ও সান্তাহার পৌরসভায় ৩ হাজার মানুষকে গণটিকা প্রদানের উদ্যোগ নেওয়া হয়।

সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সামির হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, বিশেষ গণটিকা কার্যক্রমে বগুড়া সদরের ১২টি ইউনিয়নে ১৮ হাজার এবং বগুড়া পৌরসভার ২১টি ওয়ার্ডে ১০ হাজার ৫০০ মানুষকে টিকা প্রদানের উদ্যোগ নেওয়া হয়। বিশেষ গণটিকার জন্য ইউনিয়নে এবং ওয়ার্ড পর্যায়ে টিকাকেন্দ্র খোলা হয়। কিন্তু প্রযুক্তিগত সমস্যায় টিকার জন্য পাঠানো খুদে বার্তায় কেন্দ্রের নাম ছিল বগুড়া সদর স্বাস্থ্যকেন্দ্র। এ নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হওয়ায় ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে টিকাকেন্দ্র ফাঁকা রেখে হাজারো মানুষ সদর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভিড় করেন।

সামির হোসেন বলেন, স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সামনে স্থানসংকুলান না হওয়ায় মানুষের দীর্ঘ লাইন পুরোনো শিল্পকলা সড়ক পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। বেশিসংখ্যক মানুষ ভিড় করার কারণে লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে হুড়োহুড়ি হওয়ায় পুলিশকে ডেকে পরিস্থিতি সামাল দিতে হয়। তাৎক্ষণিকভাবে বুথসংখ্যা ২ থেকে ৮-এ বাড়িয়ে সারা দিনে ৮ হাজার মানুষকে টিকা দেওয়া হয়। সদর উপজেলা ও পৌরসভায় টিকা প্রদান করা হয়েছে ২৭ হাজার ৫০০ জনকে।

বগুড়া সদর পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) খোরশেদ আলম প্রথম আলোকে বলেন, শহরের অন্য টিকাকেন্দ্র ফাঁকা থাকলেও টিকা নেওয়ার জন্য হাজারো মানুষ সদর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে হুমড়ি খেয়ে পড়েন। বিপুল মানুষের দাঁড়ানোর মতো জায়গা না থাকায় হুড়োহুড়ি শুরু হয়। পরে কিছু মানুষকে অন্য কেন্দ্রে পাঠানো হয়, কিছু মানুষকে লাইনে দাঁড়ানোর মাধ্যমে সুশৃঙ্খলভাবে টিকা গ্রহণে সহযোগিতা করা হয়।

বগুড়ার সিভিল সার্জন গওসুল আজিম চৌধুরী বলেন, মুঠোফোনে পাঠানো খুদে বার্তায় টিকাকেন্দ্রের নাম বিভ্রান্তির কারণে সদর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে টিকার জন্য মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়েন। তবে কেউ টিকা নিতে এসে ফেরত যাননি। তিনি বলেন, জেলায় ১ লাখ ৭৮ হাজার ৫০০ জনকে গণটিকা প্রদানের লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও দিন শেষে টিকা প্রদানের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। প্রতিটি কেন্দ্রেই গণটিকা সফল হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন