বগুড়ায় করোনায় উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তার মৃত্যু

বিজ্ঞাপন
default-image

বগুড়ায় জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালকের পর এবার করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মারা গেছেন একই কার্যালয়ের এক উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা। তাঁর নাম মোহসিন আলী।আজ শনিবার বিকেলে বগুড়ার টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও রফাতুল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতালে তিনি মারা যান।

মোহসিন আলী বগুড়া শহরের সাবগ্রাম এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। তিনি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের বগুড়ার উপপরিচালকের কার্যালয় বনানী খামারবাড়িতে কর্মরত ছিলেন। এ নিয়ে জেলায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে ১৭২ জনের মৃত্যু হলো। এ পর্যন্ত কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন ৭ হাজার ১২৯ জন।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মোহসিন আলীর ছেলে মো. নাবিল বলেন, জ্বর, শ্বাসকষ্টসহ করোনার উপসর্গ নিয়ে তাঁর বাবা ৩০ আগস্ট টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও রফাতুল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি হন। ৩১ আগস্ট নমুনা পরীক্ষার পর তিনি করোনা পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হন।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হাসপাতালের মুখপাত্র ও সহকারী নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুর রহিম (এইও) প্রথম আলোকে জানান, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট ছাড়াও ওই রোগীর শরীরে অক্সিজেনের উপস্থিতি অস্বাভাবিক কমে যাওয়ায় অবস্থার অবনতি ঘটে। আজ বিকেল সাড়ে চারটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এর আগে গত ৫ জুলাই করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মারা যান জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আবুল কাশেম আযাদ (৫৮)। তিনি ২৩ জুন টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের আরটি-পিসিআর ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষায় ২৩ জুন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হন। পরে তাঁকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৫ জুলাই মারা যান তিনি।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জ্বর ও শ্বাসকষ্টে একজনের মৃত্যু
শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আজ সকাল সাড়ে আটটার দিকে জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে জালাল উদ্দিন (৭৫) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তিনি বগুড়া শহরের ধাওয়াপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি ২৪ আগস্ট থেকে হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি ছিলেন। মেডিকেল কলেজের উপপরিচালক আবদুল ওয়াদুদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন