বগুড়ায় করোনায় সংক্রমিত দুজনের মৃত্যু

বিজ্ঞাপন
default-image

বগুড়ায় করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) সংক্রমিত হয়ে দুই ব্যক্তি বুধবার রাতে মারা গেছেন। বেসরকারি টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও রফাতুল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তাঁরা। এ নিয়ে জেলায় করোনা ‘পজিটিভ’ ১১২ জনের মৃত্যু হলো।

বুধবার রাত ১০টার দিকে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) মারা যান সুবেদ আলী (৪২)। তাঁর বাড়ি শিবগঞ্জ উপজেলার আটমুল ইউনিয়নের আতাহার গ্রামে। তিনি বাড়ির পাশের মাদ্রাসায় খণ্ডকালীন শিক্ষকতা করতেন। এ ছাড়া শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়িয়ে সংসার চালাতেন।

টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মুখপাত্র ও সহকারী নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুর রহিম (এইও) প্রথম আলোকে বলেন, কোভিডের উপসর্গ নিয়ে সুবেদ আলী ২১ জুলাই রাতে হাসপাতালে আসেন। উপসর্গ দেখে তাঁকে করোনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়। পরে নমুনা পরীক্ষায় ২২ জুলাই তিনি করোনা ‘পজিটিভ’ হিসেবে শনাক্ত হন। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় ১৫ জুলাই তাঁকে হাসপাতালের আইসিইউতে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার রাত ১০টার দিকে তিনি মারা যান।

একই হাসপাতালে বুধবার রাত সোয়া আটটার দিকে মারা যান করোনায় সংক্রমিত সুফিয়া খাতুন (৫৩) নামে এক নারী। তিনি হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সুফিয়া গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর গ্রামের বাসিন্দা। তবে পরিবারের সঙ্গে তিনি রাজশাহী শহরের কাজলা এলাকার মুন্নাফের মোড় এলাকায় বসবাস করতেন।

হাসপাতালের এইও আবদুর রহিম প্রথম আলোকে বলেন, ওই নারী ৬ জুলাই করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। তাঁর নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়া যায় ৭ জুলাই। এতে তিনি করোনা ‘পজিটিভ’ হিসেবে শনাক্ত হন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার রাত সোয়া আটটার দিকে মারা যান।

জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয় সূত্র জানায়, বুধবার পর্যন্ত বগুড়ায় করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৫ হাজার ৪৯ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ১১২ জন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন