বগুড়ার শেরপুরে আজ রোববার ভোরে পাথরবোঝাই ট্রাকের সঙ্গে যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।
বগুড়ার শেরপুরে আজ রোববার ভোরে পাথরবোঝাই ট্রাকের সঙ্গে যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।প্রথম আলো

বগুড়ার শেরপুরে পাথরবোঝাই ট্রাকের সঙ্গে যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই চালকসহ ছয়জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১০ জন। আজ রোববার ভোর পৌনে পাঁচটার দিকে ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে শেরপুর পৌর শহরের কলেজ রোড এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনায় নিহত ছয়জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তাঁরা হলেন শেরপুর পৌর শহরের গোসাইপাড়ার বাসচালক বাবুল সাহা (৫২), তাঁর সহকারী একই উপজেলার ধনকুন্ডি গ্রামের ইদ্রিস আলী (৪০), ট্রাকের চালক খুলনার সাদ্দাম হোসেন (৫০) এবং বাসের তিন যাত্রী মুন্সিগঞ্জের বিক্রমপুরের আক্তার হোসেন (৫৫), বগুড়ার নিশিন্দারা সাহা পাড়ার ইয়াসিন আলী (৬৫) ও তাঁর স্ত্রী হোসনে আরা বেগম (৬০)। আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

default-image

পাথরবোঝাই ট্রাকটি পঞ্চগড় থেকে সিরাজগঞ্জের দিকে যাচ্ছিল। ট্রাকটির সঙ্গে বগুড়াগামী যাত্রীবাহী এসআর ট্রাভেলসের বাসের সংঘর্ষ হয়।

ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, দুর্ঘটনায় ট্রাক ও বাসের সামনের অংশ দুমড়েমুচড়ে গেছে।

বিজ্ঞাপন

এ সময় প্রত্যক্ষদর্শী দুজন বলেন, দুটি গাড়িই বেপরোয়াভাবে যাচ্ছিল। এতে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। দুর্ঘটনার পর মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করেন। এর অন্তত আধা ঘণ্টা পর যানবাহন চলাচল শুরু হয়।

উপজেলার গাড়িদহ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এ কে এম বানিউল আনাম বলেন, নিহত ছয়জনের মধ্যে বাসের চালক, তাঁর সহকারী, ট্রাকের চালক ও বাসের তিনজন যাত্রী আছেন। ছয়জনের লাশ উদ্ধার করে হাইওয়ে ফাঁড়িতে নেওয়া হয়। দুর্ঘটনাকবলিত ট্রাক ও বাস সরিয়ে নেওয়ায় মহাসড়কে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়। দুপুর ১২টার পর পুলিশ লাশ হস্তান্তর করে। লাশ নিতে এসে স্বজনেরা কাঁদতে থাকেন।

default-image
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন