default-image

নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনে সরকারি ছুটি থাকা সত্ত্বেও প্রশিক্ষণ চালু রাখায় উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা শিরিন আখতারের কাছে কৈফিয়ত তলব করেছেন সংশ্লিষ্ট দপ্তরের উপপরিচালক ফরিদা ইয়াসমিন। আজ রোববার উপপরিচালক ফরিদা ইয়াসমিন এ কৈফিয়ত তলবের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

১৮ মার্চ সাক্ষরিত ওই চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেন, ১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবসে বাগাতিপাড়া উপজেলা পর্যায়ে চলমান আইজিএ প্রশিক্ষণ কর্মসূচি চালু রাখা হয়েছিল। ওই দিন সরকারি ছুটি থাকা সত্ত্বেও প্রশিক্ষণার্থীদের কেন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে আনা হয়েছিল এবং প্রশিক্ষণ কর্মসূচি চালু রাখা হয়েছিল, তার জবাব চাওয়া হয়েছে। বিষয়টির সুস্পষ্ট এবং সন্তোষজনক জবাব এক কর্মদিবসের মধ্যে জেলা মহিলাবিষয়ক উপপরিচালকের কার্যালয়ে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এদিকে কৈফিয়ত তলবের ওই চিঠির অনুলিপি মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, নাটোর জেলা প্রশাসক এবং বাগাতিপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা শিরিন আখতারের কাছে জানতে চাইলে তিনি এ–সংক্রান্ত চিঠি পাওয়ার বিষয়টি জানাতে অস্বীকৃতি জানান।

বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে নাটোর জেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা (উপপরিচালক) ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ১৮ মার্চ তারিখে চিঠি ইস্যু করা হলেও আজ (২১ মার্চ) সরাসরি এ–সংক্রান্ত চিঠিটি পৌঁছে দেওয়া হয়েছে এবং উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা শিরিন আখতার চিঠিটি গ্রহণ করেছেন।

প্রসঙ্গত, উপজেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের উদ্যোগে আয়বর্ধক (আইজিএ) প্রশিক্ষণ প্রকল্পের আওতায় টেইলারিং ও ব্লক-বাটিক ট্রেডে প্রশিক্ষণ কর্মসূচি চলমান রয়েছে। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের দ্বিতীয় তলায় ৬০ কর্মদিবসের এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে দুই ট্রেডে ৫০ জন নারী প্রশিক্ষণার্থী অংশ নিচ্ছেন। অভিযোগ রয়েছে, গত বুধবার ১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিনটি উদ্‌যাপনকে ঘিরে সরকারি ছুটি ঘোষণা থাকা সত্ত্বেও শিরিন আখতার প্রশিক্ষণ কর্মসূচি চালু রাখেন। ওই প্রশিক্ষণে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও শিশু দিবসের কোনো আলোচনা না করারও অভিযোগ ওঠে ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন