default-image

যমুনা নদীর বঙ্গবন্ধু সেতুর পাশে ডুয়েল গেজ রেলসেতুর নির্মাণকাজ শিগগিরই শুরু হবে। আগামী ২৯ নভেম্বর ভার্চ্যুয়াল পদ্ধতিতে রেলসেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাপানের জাইকার অর্থায়নে ২০২৫ সালের মধ্যে রেলসেতুর নির্মাণকাজ সম্ভব হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

আজ বুধবার দুপুরে সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পারের সয়দাবাদ স্টেশন ও সেতুর গোলচত্বর পরিদর্শন শেষে স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

সেতুর ওপর দিয়ে দ্রুতগতিতে রেল চলাচল করতে পারবে জানিয়ে রেলমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে একটি মাত্র লাইনে রেল চলাচল করছে বলে গতি কমাতে হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিরাজগঞ্জ-২ (সদর ও কামারখন্দ) আসনের সাংসদ মো. হাবিবে মিল্লাত, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী মো. আবদুল লতিফ বিশ্বাস, জেলা প্রশাসক (ডিসি) ফারুক আহাম্মদ, পুলিশ সুপার মো. হাসিবুল আলম, প্রকল্প পরিচালক কামরুল আহসান প্রমুখ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে বঙ্গবন্ধু সেতুর ওপর দিয়ে দিনে ৪৪টি ট্রেন চলাচল করে। সিঙ্গেল লাইন হওয়ায় সেতু পার হতে বেশ খানিকটা সময় লাগে। কিন্তু নতুন রেলসেতু নির্মাণ হলে দেশের পূর্বাঞ্চলের সঙ্গে পশ্চিমাঞ্চলের যোগাযোগ আরও সহজ হবে। রেলসেতুর দৈর্ঘ্য হবে ৪ দশমিক ৮ কিলোমিটার, তবে ডাবল লাইন হওয়ায় দৈর্ঘ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৯ দশমিক ৬০ কিলোমিটার।

প্রকল্প পরিচালক কামরুল আহসান বলেন, বঙ্গবন্ধু বহুমুখী সেতুর কয়েক শ গজ উত্তরে নতুন রেলসেতু নির্মিত হবে। নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার কথা ২০২৫ সালের ডিসেম্বর মাসে। প্রকল্পের পূর্ব অংশের ব্যয় ধরা হয়েছে ৬ হাজার ৮০১ কোটি টাকা। পশ্চিম অংশে অংশের ব্যয় ধরা হয়েছে ৬ হাজার ১৪৮ কোটি টাকা।

মন্তব্য পড়ুন 0