বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ঢাকার শ্যামলী এলাকার থেকে এসেছেন ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম (৩৭)। তিনি বলেন, ‘থার্টি ফার্স্ট নাইট উদ্‌যাপনের আশায় সৈকতে ছুটে এসেছিলাম। এখানে এসে দেখি, কিছুই নেই। এখন বালুচরে দাঁড়িয়ে বছরের শেষ সূর্যটাকে বিদায় জানিয়ে বর্ষবিদায় উদ্‌যাপন করলাম। একসঙ্গে হাজারো পর্যটক মিলে এখানে মিলিত হওয়ার আনন্দটাও অন্য রকম।’

default-image

সিলেটের কলেজছাত্র কফিল উদ্দিন (২৩) বলেন, পাঁচ বছর আগে তিনি বাবা-মায়ের সঙ্গে এই সৈকতে জীবনের প্রথম থার্টি ফার্স্ট নাইট উদ্‌যাপন করেছিলেন। তখন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও ব্যান্ড সংগীতে ছিল সৈকত এলাকায়। এখন কিছু নেই। সূর্যকে বিদায় জানিয়ে হোটেলে গিয়ে বাকি সময়টা পার করে দিতে হবে।

শরীয়তপুরের বিল্লাল হোসেন বলেন, এবার নিয়ে তৃতীয়বার এলেন। বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকতে বর্ষবিদায় ও বর্ষবরণের কোনো আয়োজন নেই, ভাবতেই অবাক লাগছে। সবকিছুই হচ্ছে নিরাপত্তার অজুহাতে। তবে হোটেলকক্ষের ভাড়া আর খাবারের দাম আগের মতোই বাড়িয়ে আদায় হচ্ছে।

default-image

কক্সবাজারের সাতটি হোটেল ও রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির সমন্বিত মোর্চা ফেডারেশন অব ট্যুরিজম ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম সিকদার বলেন, থার্টি ফার্স্ট নাইট উপলক্ষে কয়েক দিন সৈকত এলাকার পাঁচ শতাধিক হোটেল-গেস্টহাউসের শতভাগ কক্ষ ভাড়া থাকে, কিন্তু আজ ৫০ শতাংশ কক্ষ ভাড়া হয়েছে। অবশিষ্ট ৫০ শতাংশ কক্ষ খালি পড়ে আছে। শহরে এখন পর্যটক অবস্থান করছেন ৭০ হাজারের মতো। হোটেল-গেস্টহাউসগুলোতে দৈনিক পর্যটকের ধারণক্ষমতা ১ লাখ ৬০ হাজার।

পর্যটকের আগমন কমে যাওয়ার কারণ হিসেবে আবুল কাশেম সিকদার বলেন, মৌসুমজুড়ে নানা অঘটন, প্রোপাগান্ডা, শঙ্কা পর্যটকদের ভ্রমণে আসতে নিরুৎসাহিত করছে।

কলাতলী হোটেল রিসোর্ট মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুকিম খান বলেন, নিরাপত্তার অজুহাতে কয়েক বছর ধরে সৈকতের উন্মুক্ত স্থানে বিনোদনমূলক অনুষ্ঠান বন্ধ আছে। এবারও থার্টি ফার্স্ট নাইট উদ্‌যাপনের কোনো আয়োজন রাখা হয়নি সৈকতে। তবে কয়েকটি তারকামানের হোটেলে সীমিত আকারে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আছে।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, থার্টি ফার্স্ট নাইট উদ্‌যাপনকে ঘিরে সৈকতের উন্মুক্ত স্থানে সাংস্কৃতিক বিনোদনের তেমন কিছু থাকছে না। তবু সৈকতে বিপুল পর্যটকের সমাগম ঘটেছে। পর্যটকের নিরাপত্তায় কাজ করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন