বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

থানা-পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার বিকেলে উপজেলার লোহানীপাড়া ইউনিয়নের ফেসকি কদমতলা এলাকা থেকে পাঁচ গ্রাম হেরোইনসহ ওসমান গনিকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁর বাড়ি উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের মোস্তফাপুর গ্রামে। পরের দিন রোববার সকাল সাতটার দিকে ওসমান গনি পেটব্যথার কথা জানালে পুলিশ তাঁকে থানা থেকে বদরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। হাসপাতাল থেকে পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে হাতকড়াসহ তিনি পালিয়ে যান।

ঘটনার পর থেকে ওসমান গনিকে ধরতে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রাখে। ওসমান গনিকে আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগে গতকাল রোববার দুপুরে পুলিশ দামোদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য সফিকুল ইসলামকে আটক করে। ওই ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে বদরগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবুল কালাম ও কনস্টেবল আলমগীর হোসেনকে থানা থেকে গতকাল প্রত্যাহার করা হয়।

বদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুর রহমান বলেন, ওসমান গনি হাতকড়াসহ পালিয়ে গেলেও আজ গ্রেপ্তারের সময় হাতকড়া ছিল না। পরে জিজ্ঞাসাবাদ করে মোস্তফাপুর বারোবিঘা গ্রামের পার্শ্ববর্তী চিকলী নদীর পাড়ে মাটিতে পুঁতে রাখা হাতকড়াটি উদ্ধার করা হয়েছে। ওসমান গনির বিরুদ্ধে বদরগঞ্জ থানায় হত্যা, মাদকসহ বিভিন্ন মামলা রয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন