পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার কাজ শেষে সন্ধ্যার দিকে বাসায় ফেরেন আবুল কালাম আজাদ। এর পর থেকে ওই ঘরের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ অবস্থায় ছিল। শনিবার রাতে ওই ঘরের ভেতর থেকে দুর্গন্ধ ছড়াতে শুরু করে। পরে আজ সকালে বাড়িটির অন্য বাসিন্দা ও স্থানীয় লোকজন সেখানে গিয়ে ডাকাডাকি করেন। কিন্তু ভেতর থেকে দরজা খোলা হচ্ছিল না। অন্যদিকে সময়মতো কর্মক্ষেত্রে না যাওয়ায় অফিস থেকে আবুল কালাম আজাদের মুঠোফোনে কয়েক দফায় কল করা হয়। তাঁর ব্যবহৃত মুঠোফোন বন্ধ পাওয়ায় বাসায় লোক পাঠানো হয়। পরে স্থানীয়রা মাধবদী থানা-পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ এসে ঘরের দরজা ভেঙে লাশটি উদ্ধার করে।

মাধবদী থানার উপপরিদর্শক মো. বেলাল বলেন, ধারণা করা হচ্ছে, স্ট্রোক করে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তাঁর শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তাঁর পরিবারের সদস্যরা এরই মধ্যে ঘটনাস্থলে এসেছেন। তাঁরা জানিয়েছেন, এর আগেও আবুল কালাম আজাদ একবার স্ট্রোক করেছিলেন।

মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুজ্জামান বলেন, মারা যাওয়ার তিন দিন পর ঘরের দরজা ভেঙে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পরিবারের সদস্যদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন