বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পানি উন্নয়ন বোর্ডে সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালের ২০ মে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের আঘাতে পাউবোর বেড়িবাঁধ ভেঙে সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নের ১৮ গ্রাম তলিয়ে যায়। ৯ মাস পরে বাঁধ মেরামত করা সম্ভব হয়। কিন্তু তিন মাস যেতে না যেতে ২০২১ সালের ২৫ মে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস আঘাত হানে। ফলে এ ইউনিয়নের পাউবোর বেড়িবাঁধ আট স্থানে ভেঙে আবার ১৬ গ্রাম তলিয়ে যায়। এর মধ্যে চার মাস আগে সাতটি স্থানের বাঁধ সংস্কার করা হলেও বন্যতলা, প্রতাপনগর, কুড়িকাউনিয়া ও মান্দারবাড়িয়া এলাকার খোলপেটুয়া নদীর পানি ঢোকা বন্ধ হয়নি। গত ২৭ নভেম্বর বাঁধ সংস্কার করায় ওই চার গ্রামে পানি ঢোকা বন্ধ হয়েছে। এ কারণে এসব গ্রামের মানুষ আবার বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে।

প্রতাপনগর ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন বলেন, দীর্ঘদিন পরে হলেও লোকালয়ে খোলপেটুয়া নদীর জোয়ারের পানি ঢোকা বন্ধ করতে পারায় মানুষ তাদের ঠিকানায় ফিরতে শুরু করেছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন