বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে সড়ক, ছয় গ্রামের মানুষের ভোগান্তি

বন্যার পানিতে সেতুর দুই পাশের সড়ক তলিয়ে গেছে। আজ সোমবার জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার গাছ বয়ড়া এলাকায়
ছবি: প্রথম আলো

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে ঝিনাই নদের পানি বেড়ে যাওয়ায় গ্রামীণ একটি সড়ক পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে পোগলদিঘা ইউনিয়নের ছয়টি গ্রামের মানুষের যাতায়াতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। ছয় দিন ধরে স্থানীয় মানুষদের চলাচলে ভেলা ও নৌকা ব্যবহার করতে হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দা, ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, পোগলদিঘা ইউনিয়নের মালিপাড়া, মানিকপটল, গাছ বয়ড়া, বিন্নাফৈর, বামুনজানি ও টাকুরিয়া গ্রামের প্রায় ৫০ হাজার মানুষ উপজেলা সদরে যোগাযোগের জন্য গাছ বয়ড়া-মানিকপটল সড়ক ব্যবহার করে। সড়কটির গাছ বয়ড়া সেতুর দুই পাশে সড়ক বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। কাঁচা রাস্তাটি নিচু হওয়ায় নদের পানি বাড়লেই তলিয়ে যায়। এতে লোকজনকে ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

গাছ বয়ড়া গ্রামের আয়নাল হক (৪২) বলেন, ‘বাড়ি থাইকে বাড়াইলেই পানি। নাও ছাড়া আমগো উপায় নাই।’ মানিকপটল গ্রামের কলেজশিক্ষার্থী রবিউল ইসলাম বলেন, ছয় দিন ধরে তাঁরা নৌকা দিয়ে চলাচল করছেন। সড়কটি উঁচু করে তৈরি করা হলে কষ্ট করতে হতো না।

গাছ বয়ড়া গ্রামের ইউপি সদস্য মোবারক আলী বলেন, গ্রামবাসীর দাবি সড়কটি উঁচু করে তৈরি করে দিলে চলাচলে আর কষ্ট হবে না।

পোগলদিঘা ইউপি চেয়ারম্যান সামস উদ্দিন বলেন, বন্যায় গ্রামরক্ষা বেড়িবাঁধটি ভেঙে যাওয়ায় রাস্তার কোনো চিহ্ন নেই। নতুন করে সড়ক তৈরি করার জন্য উপজেলা প্রকৌশলী ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কাছে আবেদন করা হয়েছে। উঁচু করে সড়ক তৈরি করা হলেই সেতু দিয়ে যাতায়াতে মানুষের ভোগান্তি কমবে।

উপজেলা প্রকল্প বায়স্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) হুমায়ূন কবীর বলেন, সামনে শুকনো মৌসুমে প্রকল্পের মাধ্যমে সড়কটি উঁচু করে তৈরি করে দেওয়া হবে। এতে মানুষের যাতায়াতে আর দুর্ভোগ পোহাতে হবে না।