বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জানা গেছে, জ্বর, সর্দি, কাশি ও মাথাব্যথা নিয়ে তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রে কর্মরত চীনের চার নাগরিক গত শনিবার তালতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কেন্দ্রে করোনা পরীক্ষার নমুনা দেন। সেখান থেকে নমুনা বরিশাল পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। আজ নমুনা পরীক্ষার ফল পাওয়া যায়।

এক সপ্তাহ আগে এই তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রে ২২ জন করোনায় আক্রান্ত হন। আজ আবার চারজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

স্থানীয় ব্যক্তিরা বলছেন, আক্রান্ত ব্যক্তিরা আইসোলেশনে আছেন। তবু করোনা ছড়িয়ে পড়ায় শঙ্কায় আছেন তাঁরা। বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রকল্প কর্মকর্তা ও নির্মাণশ্রমিকেরা অহরহ বাইরে ঘোরাঘুরি করছেন।

প্রকল্প এলাকার বাসিন্দা শাহাদাত হোসেন বলেন, গত সপ্তাহেই এই তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রে ২২ জন করোনায় আক্রান্ত হন। আজ আবার চারজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এই কেন্দ্রের লোকজন যদি বাইরে ঘোরাফেরা করেন, তাহলে তো উপজেলায় করোনার মহামারি আবার ছড়িয়ে পড়বে।

বরগুনা সিভিল সার্জন মারিয়া হাসান বলেন, ‘তালতলী তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রে কর্মরত চীনের চার নাগরিকের নতুন করে করোনায় আক্রান্তের বিষয়টি আমরা প্রশাসনকে জানিয়েছি। প্রশাসন প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নিচ্ছে। এর আগে চীনের ২২ নাগরিক করোনা পজিটিভ হয়েছিলেন। তাঁদের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।’ সিভিল সার্জনের অনুযোগ, ‘এই প্রকল্পের কর্মকর্তারা আমাদের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ রক্ষা করছেন না। আমাদের পক্ষ থেকে তাঁদের করোনা পরীক্ষা করতে গেলেও তাঁরা নমুনা দিতে অনিচ্ছুক। তাঁরা তাঁদের দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন