বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, করোনায় দুই বছর পর উন্মুক্ত স্থানে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ঈদ জামাতের নিরাপত্তায় পোশাকধারী আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি সাদাপোশাকে জেলার বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ মোতায়েন করা হবে।

বরগুনা সদরঘাট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন কবির প্রথম আলোকে বলেন, বরগুনার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে সকাল আটটায় প্রধান জামাত, সকাল সাড়ে আটটায় আবুল হোসেন ঈদগাহ মাঠে ঈদের দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হবে। তবে আবহাওয়া অনুকূলে না থাকলে বরগুনা সদরঘাট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে সকাল সাড়ে আটটায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া বরগুনা সদর উপজেলার জামে মসজিদগুলোতে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

এ ছাড়া বেতাগী উপজেলার বেতাগী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে সকাল আটটায়, বেতাগী উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদে সকাল সাড়ে আটটায়, বিবিচিনি শাহি জামে মসজিদে সকাল সাড়ে আটটায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। বামনা উপজেলায় সাত জায়গায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। সেগুলো হলো বামনা সাহেববাড়ি বাজার জামে মসজিদ, বামনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জামে মসজিদ, কলাগাছিয়া মিয়াবাড়ি জামে মসজিদ, বামনা হাসপাতাল জামে মসজিদ, সারওয়ারজান পাইলট মডেল উচ্চবিদ্যালয় জামে মসজিদ, মদিনা জামে মসজিদ, বামনা সিকদার বাড়ি ঈদগাহ মাঠ। ঈদের জামাতের জন্য এসব এলাকার ঈদগাহ মাঠগুলো ইতিমধ্যে প্রস্তুত করা হয়েছে।

বরগুনার পুলিশ সুপার মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর মল্লিক প্রথম আলোকে বলেন, ঈদের জামাতের পাশাপাশি ঈদ উপলক্ষে জেলায় ব্যাপক নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পোশাকধারী আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি সাদাপোশাকে জেলার বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ মোতায়েন করা থাকবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন