বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বরগুনা জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে আইনজীবী কমল কান্তি দাসকে গতকাল বিকেলে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসা হয়। সেখানে তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে করোনাভাইরাস ইউনিটে ভর্তি করা হয়। তিনি দীর্ঘদিন উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস ও হৃদ্‌রোগে ভুগছিলেন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১০টার দিকে তিনি মারা যান।

কমল কান্তির মৃত্যুতে বরগুনা জেলা আইনজীবী সমিতি, বরগুনা প্রেসক্লাব, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, খেলাঘর, উদীচী ও মহিলা পরিষদের পক্ষ থেকে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়েছে।

বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে এখন পর্যন্ত কোভিড–১৯–এ আক্রান্ত হয়ে চারজন মারা গেছেন। আর উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন সাতজন। এর মধ্যে ছয়জনের নমুনা পরীক্ষা নেগেটিভ আসে।বরগুনা সিভিল সার্জন কার্যালয় জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত জেলায় ৮৪১ জনের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৯ জন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন