বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, জেলা বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মোল্লার সভাপতিত্বে সকাল সাড়ে ৯টায় শহরের কাঠপট্টি সড়ক এলাকায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে সংগঠনের নেতা-কর্মীরা অনশন শুরু করেন। সড়কের ওপর কাপড় বিছিয়ে অনশনে বসেন তাঁরা। শুরু থেকেই বিএনপি কার্যালয়ের দুই প্রান্তে পুলিশ নেতা-কর্মীদের অবরুদ্ধ করে রাখে। একপর্যায়ে পুলিশ সড়ক থেকে বিএনপির নেতা-কর্মীদের সরে যেতে বলে। বিএনপির নেতা-কর্মীরা সড়ক ছেড়ে না যাওয়ায় পুলিশ লাঠিপেটা শুরু করে। এতে বিএনপির অনশন কর্মসূচি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

জেলা বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মোল্লা বলেন, তাঁরা ৯টার পর থেকে শান্তিপূর্ণভাবেই অনশন কর্মসূচি পালন করছিলেন। এরপর পুলিশ তাঁদের ওপর অতর্কিত লাঠিপেটা শুরু করে। এতে দলের ২০-২৫ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। একটি গণতান্ত্রিক দেশে এমন ঘটনা কখনোই ঘটে না। শান্তিপূর্ণ গণ-অনশনে লাঠিপেটা ও গ্রেপ্তারের ঘটনা লজ্জাজনক।

আটক নেতাদের মধ্যে রয়েছেন, জেলা যুবদলের সভাপতি জাহিদ হোসেন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল ইসলাম, পৌর যুবদলের আহ্বায়ক ওয়াসিম রেজা, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ফয়জুল মালেক, পাথরঘাটা পৌর যুবদলের আহ্বায়ক মোখলেছুর রহমান।

জানতে চাইলে বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারিকুল ইসলাম বলেন, বিএনপির নেতা-কর্মীরা পুলিশের ওপর হামলা চালান। এ ঘটনায় ছয়জনকে আটক করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন