বরিশালে করোনা ওয়ার্ডে সাড়ে ৪ ঘণ্টায় তিনজনের মৃত্যু

বিজ্ঞাপন
default-image

বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনাভাইরাস ওয়ার্ডে আজ রোববার সাড়ে চার ঘণ্টায় আরও তিন রোগী মারা গেছেন। গতকাল শনিবার হাসপাতালের করোনাভাইরাস ওয়ার্ডে ১২ ঘণ্টার কিছু বেশি সময়ের ব্যবধানে তিনজন মারা গিয়েছিলেন।

আজ মারা যাওয়া তিনজনের প্রথম জন বেলা সোয়া ১১টায়, দ্বিতীয়জন বেলা ৩টা ৪০ মিনিটে এবং এর পাঁচ মিনিট পরই তৃতীয়জন মারা যান।

হাসপাতালের পরিচালক মো. বাকির হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ‘মারা যাওয়া ব্যক্তিদের নমুনা সংগ্রহ করে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের করোনা পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে। তিনজনই খুব খারাপ অবস্থায় হাসপাতালে এসেছিলেন। পুরো বিষয়টি নিয়ে আমরাও আতঙ্ক আর উদ্বেগের মধ্যে আছি।’

মারা যাওয়া তিনজনের মধ্যে একজনের (৬৫) বাড়ি বরিশাল নগরের কাজীপাড়া এলাকায় ও আরেকজনের (৬০) বাবুগঞ্জে এবং অপরজনের (৬৫) বাড়ি ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলায়।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, দুপুরে মারা যাওয়া বরিশাল নগরের কাজীপাড়া এলাকার ওই ব্যক্তি সকাল পৌনে ১০টায় জ্বর, শ্বাসকষ্ট নিয়ে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনাভাইরাস ওয়ার্ডে ভর্তি হন। বেলা সোয়া ১১ টার দিকে তিনি মারা যান। বিকেলে মারা যাওয়া বাবুগঞ্জের ওই ব্যক্তি সকাল পৌনে নয়টার দিকে জ্বর, শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন। ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার ব্যক্তি বেলা পৌনে দুইটার দিকে ভর্তি হন, মারা যান পৌনে চারটার দিকে। এ নিয়ে গত ৯ দিনে ওই ওয়ার্ডে ১১ জনের মৃত্যু হলো।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য বিভাগ ও শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্র জানায়, বরিশাল বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালের করোনাভাইরাস ওয়ার্ডে গত ২৮ মার্চ থেকে রোববার পর্যন্ত করোনার উপসর্গ নিয়ে ৪০ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে ৩৩ জন শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান।

এ ছাড়া বিভাগে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হওয়া (কোভিড-১৯–এ আক্রান্ত) ১০ জন মারা গেছেন। তাঁদের মধ্যে তিনজন পটুয়াখালীর, দুজন বরগুনার, দুজন ঝালকাঠির এবং বরিশাল, পিরোজপুর ও ভোলার একজন করে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন