default-image

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে বরিশালে কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল আজহার প্রধান ঈদের জামাত হচ্ছে না। তবে সকাল ৮টায় বরিশাল কালেক্টরেট জামে মসজিদে ঈদ জামাতে অংশ নেবেন জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমানসহ প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা। নির্দেশনা না থাকায় ঈদগাহে প্রধান জামাতের আয়োজন করেনি সিটি করপোরেশন। গত ঈদুল ফিতরেও একই কারণে ঈদগাহে জামাত অনুষ্ঠিত হয়নি।

এদিকে স্বাস্থ্যবিধিসহ শারীরিক দূরত্ব রক্ষায় এবার শহরের অনেক মসজিদে দুই থেকে সর্বোচ্চ চারটি করে ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়েছে। বরিশাল বিভাগে ঈদের সর্ববৃহৎ জামাত অনুষ্ঠিত হবে সদর উপজেলার চরমোনাই দরবার শরিফ মাঠে সকাল ৯টায়। চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করিম এই জামাতে ইমামতি করবেন। বিভাগের দ্বিতীয় বৃহত্তম ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে পিরোজপুরের নেছারাবাদের ছারছিনা দরবার শরিফ মাঠে সকাল সাড়ে ৮টায়। ঝালকাঠির এন এস কামিল মাদ্রাসা মাঠে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ হজরত ইয়ার উদ্দিন খলিফা (রা.) দরবার শরিফ মাঠে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৭টায়। বরিশালের উজিরপুরের গুঠিয়ায় অবস্থিত দেশের অন্যতম দৃষ্টিনন্দন বায়তুল আমান মসজিদ কমপ্লেক্সে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়।

এ ছাড়া নগরের চৌমাথা এলাকার মার্কাজ জামে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ৭টায়। কেন্দ্রীয় কারাগার জামে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। শহরের খান সড়ক জামে মসজিদে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। নগরের সদর রোডের জামে বায়তুল মোকাররম মসজিদে ঈদের প্রথম জামাত সকাল ৮টায় ও দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৯টায়। গির্জা মহল্লা রোডের জামে কশাই মসজিদে সকাল ৮টায় প্রথম ও সকাল ৯টায় দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হবে। নগরের চকবাজার জামে এবাদুল্লাহ মসজিদে ঈদের তিনটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৮টায় প্রথম, সকাল ৯টায় দ্বিতীয় ও সকাল ১০টায় তৃতীয় জামাতের আয়োজন করা হয়েছে। নগরের পুলিশ লাইনস জামে মসজিদে ঈদে সর্বাধিক চারটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম বলেন, শারীরিক দূরত্ব রক্ষার জন্য পুলিশ লাইনস জামে মসজিদে সকাল ৮টায় প্রথম, সকাল সাড়ে ৮টায় দ্বিতীয়, সকাল ৯টায় তৃতীয় ও সকাল সাড়ে ৯টায় ঈদের চতুর্থ জামাতের আয়োজন করা হয়েছে।

কয়েক হাজার পরিবারের ঈদ উদ্‌যাপন
সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে বরিশাল বিভাগের ৪ জেলার ৪৫টি গ্রামের কয়েক হাজার পরিবার শুক্রবার ঈদুল আজহা উদযাপন করছে। সকাল ৯টায় বরিশাল নগরের ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের তাজকাঠির জাহাগিরিয়া শাহ সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

এ ছাড়া ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর সাগরদী মৃধাবাড়ি শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদ, ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে হরিনাফুলিয়া চৌধুরী বাড়ি শাহ-মমতাজিয়া জামে মসজিদ ও ২২ নম্বর ওয়ার্ডে জিয়া সড়ক শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদে পৃথক জামাতে কয়েক হাজার ধর্মপ্রাণ মুসলমান ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেন।

বরিশাল সদর উপজেলার সাহেবের হাটের পতাং গ্রামে পতাং শাহ্সুফি মমতাজিয়া মসজিদ, মেহেন্দীগঞ্জের তালুকদার চর গ্রামে তালুকদার চর শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদে ঈদুল আজহার জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এ ছাড়া বরগুনা, পটুয়াখালী, ঝালকাঠি ও ভোলার বেশ কয়েকটি গ্রামে একইভাবে ঈদুল আজহা উদ্‌যাপিত হচ্ছে।

বরিশাল নগরের তাজকাঠি এলাকার হাজী বাড়ি জামে মসজিদের সভাপতি আমীর হোসেন বলেন, সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখেই বরিশাল বিভাগের চার জেলার প্রায় ৪৫টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ আনন্দঘন পরিবেশে পবিত্র ঈদুল আজহা পালন করছেন। এবার করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতি বিরাজ করায় স্বাস্থ্য সুরক্ষাবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদের জামাত সম্পন্ন হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0