বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

দীর্ঘ দুই দশকের বেশি সময় ধরে রূপাতলী বাস টার্মিনালকেন্দ্রিক শ্রমিক সংগঠন মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন ওই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা ও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সুলতান মাহমুদ। প্রায় দুই মাস আগে মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক পরিমল চন্দ্র দাসকে সভাপতি ও টেম্পো মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আহমেদ শাহরিয়ার বাবুকে সাধারণ সম্পাদক করে পৃথক একটি কমিটি ঘোষণা করা হয়। এরপর থেকেই টার্মিনালের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দুই পক্ষ মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে।

একপক্ষের নেতা সুলতান মাহমুদ বলেন, পরিমল চন্দ্র দাস ও আহমেদ শাহরিয়ার বাবুর নেতৃত্বে গঠিত কমিটিকে সাধারণ শ্রমিকেরা মেনে নেননি। তাঁরা জোরপূর্বক টার্মিনালের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছেন। আজ পরিমল-বাবুর লোকজন টার্মিনালে অবস্থান নিয়ে তাঁর (সুলতান) শ্রমিকদের কাজে যোগ দিতে বাধা দেন। এ সময় সদ্য গঠিত ওই কমিটির বাবুল, হান্নান মৃধা, শওকত খানসহ কয়েকজন মিলে হামলা করে পাঁচ শ্রমিককে আহত করেন।

default-image

তবে মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সদ্য গঠিত কমিটির সভাপতি পরিমল চন্দ্র দাস বলেন, দীর্ঘদিন পর আজ সকাল থেকে বাস চলাচল শুরু হয়। শ্রমিকেরা সকালে যাত্রী তোলার কাজে করছিলেন। আকস্মিকভাবে সুলতান মাহমুদের লোকজন হামলা চালান। এতে বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নাসির মৃধাসহ পাঁচজন আহত হন। পরিমল চন্দ্র দাস বলেন, তাঁরা হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করবেন। আসামিদের গ্রেপ্তার না করা হলে কাল সকাল থেকে আবার বাস চলাচল বন্ধ করে দেবেন।

বরিশাল-পটুয়াখালী বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাওছার হোসেন বলেন, হামলার প্রতিবাদে আজ সকাল ৯টা থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত বাস চলাচল বন্ধ ছিল। পরে তাঁরা নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনালের মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে সভা করে মালিক সমিতির সহসভাপতি নাসির মৃধাসহ অন্যদের ওপর হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে প্রশাসনকে কাল সকাল আটটা পর্যন্ত আলটিমেটাম দিয়েছেন। এ সময়ের মধ্যে গ্রেপ্তার করা না হলে কাল সকাল আটটা থেকে দুই টার্মিনালের সব ধরনের বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন