default-image

বরিশালে তিন চাকার যান মাহেন্দ্র ও যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই মাদ্রাসাছাত্র নিহত হয়েছে। এতে আহত হয়েছে আরও ছয়জন। গতকাল শনিবার রাত সোয়া ১০টার দিকে নগরের কাশিপুর এলাকায় বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ছাত্ররা হলো পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার মো. জাফরের ছেলে মো. হামজা (১১) ও একই এলাকার আকতারুজ্জামানের ছেলে আল নোমান (১৩)। তারা বরিশাল নগরীর কাউনিয়া এলাকার তাহফিজুল কোরআন মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র ছিল।

এ দুর্ঘটনায় আহত ছয়জন হলেন নিহত নোমানের বাবা আকতারুজ্জামান, তাঁর বড় ছেলে মাদ্রাসাছাত্র আইমান (১৬), একই এলাকার আশরাফ আলীর ছেলে বাইজিদ (১২), বরিশাল নগরীর রূপাতলী এলাকার মো. রিপনের ছেলে মাদ্রাসাছাত্র মো. জিহাদুল (১২), আরেক যাত্রী জিয়াউর রহমান ও মাহেন্দ্রচালক আবদুল লতিফ। তাদের বাড়ি বরিশাল নগরীর কাশিপুর এলাকায়। নিহত ও আহত ব্যক্তিরা মাহিন্দ্রার যাত্রী।

বরিশাল নগরের বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমলেশ চন্দ্র হালদার জানান, দুর্ঘটনায় আহত শিশুরাও বরিশাল নগরীর কাউনিয়া এলাকার তাহফিজুল কোরআন মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র। ওই মাদ্রাসার শিক্ষক আকতারুজ্জামান। গত শুক্রবার আকতারুজ্জামান তাঁর দুই ছেলেসহ পাঁচ ছাত্রকে নিয়ে পিরোজপুরের নেছারাবাদ উপজেলার ছারছিনা দরবার শরিফে মাহফিলে যান। গতকাল রাত সাড়ে নয়টার দিকে মাহফিল থেকে বানারীপাড়া হয়ে তাঁরা মাহেন্দ্রায় বরিশাল নগরীতে ফিরছিলেন। ওই যানে তাঁরা ছাড়াও আরও দুই যাত্রী ছিলেন।

স্থানীয় ব্যক্তিরা জানান, গতকাল রাতে কাশিপুর মদিনা পেট্রলপাম্প–সংলগ্ন এলাকা অতিক্রমকালে তাদের বহনকারী মাহেন্দ্রর সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা ঢাকাগামী সাকুরা পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মাহেন্দ্র দুমড়েমুচড়ে যায়। আহত হয় ওই গাড়ির সাত যাত্রী ও চালক। পরে পথচারীরা আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। অন্যদিকে, দুর্ঘটনার পর বাসটি চালিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন চালক ও তাঁর সহকারী।

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ নায়েক মাসুম রেজা বলেন, মাহেন্দ্রর সাত যাত্রী ও চালককে হাসপাতালে ভর্তির পর রাত পৌনে ১১টার দিকে হামজার মৃত্যু হয়। এর দেড় ঘণ্টা পর রাত সোয়া ১২টার দিকে আল নোমান নামের আরেক যাত্রী মারা যায়।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন