বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে দুই পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। সেই সঙ্গে ওই দুই পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছেন বরিশাল মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান। তিনি বলেন, পালিয়ে যাওয়া আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে দুই পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। সেই সঙ্গে ওই দুই পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

আসামি মাসুদ খান বরিশাল নগরীর হাটখোলা এলাকার মো. হারুন খানের ছেলে। দায়িত্বে অবহেলায় অভিযুক্ত দুই পুলিশ সদস্য হলেন নগর পুলিশ লাইনসের কনস্টেবল মশিউর রহমান ও সজল ঘরামি।

হাসপাতালের পরিচালক এইচ এম সাইফুল ইসলাম বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চিকিৎসার বাইরে কোনো আসামির নিরাপত্তা প্রদান করে না। এটা আইন প্রয়োগকারী সংস্থা নিশ্চিত করে।

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আজিমুল করিম বলেন, নগরীতে একটি চুরির ঘটনায় জড়িত অভিযোগে গণপিটুনির শিকার হন মাসুদ খান। গত ৩০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় তাঁকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁর পাহারায় দুই পুলিশ সদস্যকে রাখা হয়। আজ ওই ব্যক্তি পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে হাতকড়াসহ হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যান।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন