বরিশালে ১০ ঘণ্টায় করোনা ওয়ার্ডে ইউপি সদস্যসহ পাঁচজনের মৃত্যু

বিজ্ঞাপন
default-image

বরিশালে ১০ ঘণ্টার ব্যবধানে করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) সংক্রমিত একজনসহ পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। গতাকল বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া নয়টার পর থেকে রাত সাড়ে সাতটার মধ্যে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে তাঁরা মারা যান। হাসপাতালের পরিচালক মো. বাকির হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন গাজী মো. ইউনুস (৫০) নামের এক ইউপি সদস্য। তিনি করোনা ‘পজিটিভ’ ছিলেন।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার খেজুরতলা এলাকার বাসিন্দা গাজী মো. ইউনুস। তিনি বাগধা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৩ নম্বর ওয়ার্ডের নির্বাচিত সদস্য। করোনায় সংক্রমিত হয়ে ১ আগস্ট শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি হন ইউনুস। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল সন্ধ্যা ছয়টার দিকে মারা যান।

এদিকে গতকাল সন্ধ্যা সোয়া সাতটার দিকে হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে মারা যান ৭০ বছর বয়সী একজন। তিনি বরগুনা সদর উপজেলার বাসিন্দা। ৩০ জুলাই রাতে করোনার উপসর্গ নিয়ে এ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। গতকাল বেলা পৌনে তিনটার দিকে মারা যান ৬৭ বছর বয়সী একজন। তিনি মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার বাসিন্দা। শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন উপসর্গ নিয়ে গতকাল সকালে তাঁকে এই হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছিল।

একই দিন বেলা পৌনে দুইটার দিকে হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে মারা যান ৩২ বছর বয়সী এক নারী। তিনি ঝালকাঠি সদর উপজেলার বাসিন্দা। ওই নারীকে করোনার উপসর্গ নিয়ে গতকাল সকালে এই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। আর গতকাল সকাল সাড়ে নয়টার দিকে হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে মারা যান ৭৫ বছর বয়সী এক নারী। তিনি বরিশাল সদর উপজেলার চণ্ডীপুর এলাকার বাসিন্দা। এই নারী করোনার উপসর্গ নিয়ে ২ আগস্ট দুপুরে এই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।

হাসপাতালের পরিচালক বাকির হোসেন জানান, গত ২৮ মার্চ থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত এই হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ১৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনা ‘পজিটিভ’ ছিলেন ৬৯ জন। গতকাল উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া চারজনের নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষার ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন