default-image

ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) প্রথম ধাপের নির্বাচনে বরিশাল জেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের ১৪ প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার পথে। গতকাল বুধবার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেওয়ায় ওই ১৪টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা একক প্রার্থী হিসেবে জয়ের পথে। একইভাবে সাধারণ সদস্যপদে ১৫ জন এবং সংরক্ষিত নারী সদস্যপদে দুজন প্রার্থীও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে।

বরিশাল জেলার জ্যেষ্ঠ নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, প্রথম ধাপে বরিশাল জেলার ৫০টি ইউনিয়নে নির্বাচন হবে আগামী ১১ এপ্রিল। এর মধ্যে ১৪টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে যে ১৪ প্রার্থী, তাঁরা হলেন উজিরপুর উপজেলার শোলক ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবদুল হালিম সরদার, মুলাদী সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রার্থী কামরুল আহসান, গৌরনদী উপজেলার নলচিড়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী গোলাম হাফিজ মৃধা, মাহিলাড়া ইউনিয়নে সৈকত গুহ, খাঞ্জাপুর ইউনিয়নে নূর আলম সেরনিয়াবাত, বার্থী ইউনিয়নে আবদুর রাজ্জাক, বাটাজোর ইউনিয়নে আবদুর রব হাওলাদার, চাদশী ইউনিয়নে নজরুল ইসলাম, বানারীপাড়া উপজেলায় বিশারকান্দি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সাইফুল ইসলাম, ইলুহার ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের শহিদুল ইসলাম, সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নে মো. সিদ্দিকুর রহমান, সদর ইউনিয়নে আবদুল জলিল ঘরামী, উদয়কাঠি ইউনিয়নে রাহাদ আহম্মেদ ও বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুধল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের গোলাম মোর্শেদ।

বিজ্ঞাপন

বরিশাল আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, বরিশাল বিভাগের ৬ জেলায় মোট ইউনিয়নের সংখ্যা ৩৭৬টি। এর মধ্যে প্রথম দফায় ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে ১৭৩টি ইউনিয়নে। এর ২১টি ইউনিয়নে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট গ্রহণ হবে।

বরিশাল জেলায় প্রথম দফায় ৫০টি ইউনিয়নে নির্বাচন হচ্ছে। এতে চেয়ারম্যোন পদে ১৯৯ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এর মধ্যে বাকেরগঞ্জের দুধল, গৌরনদীর বাটাজোর, খাঞ্জাপুর, চাদশী, মাহিলাড়া ও নলচিড়ায় একজন করে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। তাঁরা সবাই আওয়ামী লীগের প্রার্থী। গতকাল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে আরও আট ইউনিয়নে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন। আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা এককভাবে জয়ের পথে আছেন। এদিকে ৫০টি ইউনিয়নে সাধারণ ওয়ার্ডে ১ হাজার ৬২১ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন এবং বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১৫ সদস্য প্রার্থী জয়ের পথে আছেন। একই সঙ্গে সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৫১৬ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এবং তাঁদের মধ্যে দুজন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে আছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন