default-image

বরিশাল নগরে তীব্র গরমের কারণে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে এক রিকশাচালকের মৃত্যু হয়েছে। রাজা মিয়া (৬৭) নামের ওই রিকশাচালক নগরীর সদর রোডে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে রাস্তায় পড়ে যান। পরে সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। চিকিৎসকেরা ধারণা করছেন, তীব্র দাবদাহে হিটস্ট্রোকে তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রিকশাচালক রাজা মিয়ার বাড়ি ঝালকাঠি জেলায়। তিনি বরিশাল নগরের মথুনারাথ স্কুলসংলগ্ন গলিতে পরিবার নিয়ে ভাড়া বাড়িতে বসবাস করতেন।

রিকশাচালক রাজা মিয়া আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ল্যাবএইড ডায়াগনস্টিকের সামনে রিকশা থামান। হঠাৎ তিনি কাঁপতে কাঁপতে রাস্তায় পড়ে যান।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েক ব্যক্তি জানান, রাজা মিয়া আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ল্যাবএইড ডায়াগনস্টিকের সামনে রিকশা থামান। হঠাৎ তিনি কাঁপতে কাঁপতে রাস্তায় পড়ে যান। এ সময় ঘটনাস্থলে থাকা পথচারীরা তাঁকে ধরাধরি করে ল্যাবএইড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে যান। খবর পেয়ে তাঁর পরিবারের সদস্যরা সেখানে আসেন এবং অসুস্থ রাজা মিয়াকে বরিশাল সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে নেওয়ার পর জরুরি বিভাগের চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন
রাজা মিয়াকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, তীব্র গরমের কারণে হিটস্ট্রোকে তাঁর মৃত্যু হতে পারে।
আফিয়া সুলতানা, বরিশালের জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসা কর্মকর্তা

কোতোয়ালি মডেল থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) রিয়াজ বলেন, ল্যাবএইডে রাখা অবস্থায় রিকশাচালক রাজা মিয়ার মেয়ে মাহিনুর ও ছেলে ইমনকে খবর দেওয়া হয়। তাঁরা দ্রুত ঘটনাস্থলে আসেন। পরে তাঁদের সঙ্গে নিয়ে বরিশালের সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

বরিশালের জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসা কর্মকর্তা আফিয়া সুলতানা বলেন, ‘রাজা মিয়াকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, তীব্র গরমের কারণে হিটস্ট্রোকে তাঁর মৃত্যু হতে পারে।’

বরিশাল আবহাওয়া কার্যালয়ের পর্যবেক্ষক নাসির উদ্দিন জানান, আজ বেলা ২টায় বরিশালের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর চলতি মৌসুমে বরিশালে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ২৫ এপ্রিল, ৩৮ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন