default-image

বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। নগরের একটি এলাকার বাসিন্দা ওই তরুণী গতকাল সোমবার রাতে জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে এ বিষয়ে বিমানবন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

বরিশাল নগর পুলিশের বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমলেশ হালদার বিষয়টি নিশ্চিত করে আজ মঙ্গলবার দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, ওই তরুণী ছাত্রলীগের নেতা জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগটি প্রাথমিকভাবে তদন্ত করা হচ্ছে। সত্যতা পেলে মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হবে।

তবে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন অভিযোগটিকে মিথ্যা দাবি করে বলেন, ওই তরুণী তাঁর আত্মীয়। তিনি গত রোববার বিয়ে করেছেন। এরপরই অজ্ঞাত কারণে ওই তরুণী তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণের মিথ্যা অভিযোগ তুলেছেন। জসিমের দাবি, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ তাঁকে ফাঁসাতে ওই তরুণীকে দিয়ে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করিয়েছে।

ধর্ষণের একপর্যায়ে তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হলে তাঁকে গর্ভপাতের ওষুধ খাওয়ানো হয় এবং নগরের সদর হাসপাতালে নিয়ে গর্ভপাত করানো হয়।

লিখিত অভিযোগে তরুণী উল্লেখ করেছেন, ২০১৯ সালের ১০ সেপ্টেম্বর জসিম উদ্দিন তাঁর বাসায় ঢুকে তাঁকে ধর্ষণ করেন। এরপর বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে গিয়ে জসিম তাঁকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। একপর্যায়ে তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হলে তাঁকে গর্ভপাতের ওষুধ খাওয়ানো হয় এবং নগরের সদর হাসপাতালে নিয়ে গর্ভপাত করানো হয়। এরপর তিনি জসিম উদ্দিনকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে গত ৫ মার্চ জসিম দুদিনের মধ্যে তাঁকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তবে পরে জসিম তরুণীকে জানিয়ে দেন, তিনি বিবাহিত। তাঁকে (তরুণী) বিয়ে করা সম্ভব নয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন