বিজ্ঞাপন

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্র জানায়, বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় করোনা ও করোনার উপসর্গ নিয়ে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৪ জন করোনায় ও বাকি ১১ জন উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। এর মধ্যে বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে উপসর্গ নিয়ে মারা যান ১১ জন। আর পজিটিভ ৪ জনের মধ্যে দুজন করে মারা যান বরিশাল ও ঝালকাঠি জেলায়। এ নিয়ে বিভাগে করোনায় মৃত মানুষের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৫৬।

গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৮৮৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৮৭৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়। শনাক্তের হার ৪৭ দশমিক ৩৯ শতাংশ। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে ১ হাজার ২৬৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫৭৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। শনাক্তের হার ৪৫ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ড সূত্র জানায়, এই হাসপাতালের ৩০০ শয্যার বিপরীতে আজ মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত ৩১১ জন রোগী ভর্তি ছিলেন। আর আইসিইউ ইউনিটের ২২টি শয্যার সব কটিতেই রোগী আছে। আরও বেশ কয়েকজন মুমূর্ষু রোগী আইসিইউর জন্য অপেক্ষমাণ।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক শ্যামল কৃষ্ণ মণ্ডল বলেন, পরিস্থিতি কমেই ভয়াবহ হচ্ছে। শের-ই-বাংলা হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডের ৩০০ শয্যা পরিপূর্ণ হয়ে যাওয়ায় গতকাল সোমবার থেকে বরিশাল সদর হাসপাতালে ২২ শয্যার একটি করোনা ওয়ার্ড চালু করা হয়েছে। এটি ৫০ শয্যায় উন্নীত করার প্রস্তাব আছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে হলে এর বিকল্প নেই। তিনি বলেন, সাধারণ মানুষ সচেতন না হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা দুঃসাধ্য হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাই সংক্রমণ প্রতিরোধের একমাত্র উপায়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন