বিজ্ঞাপন

এ পর্যন্ত বরিশাল জেলায় মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৬ হাজার ৮৫৭, পটুয়াখালীতে ২ হাজার ১৮৪, ভোলায় ১ হাজার ৮৪৪, পিরোজপুরে ১ হাজার ৬২৩, বরগুনায় ১ হাজার ২৪২ ও ঝালকাঠিতে ১ হাজার ৩০১।

বিভাগে এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যু মানুষের সংখ্যা ২৭৪। এর মধ্যে বরিশালে ১১৮, পটুয়াখালীতে ৫০, ভোলায় ২৫, পিরোজপুরে ৩১, বরগুনায় ২৪ ও ঝালকাঠিতে ২৬ জন।

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্র জানায়, এই হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে মৃত মোট মানুষের সংখ্যা ৬৩৩। এর মধ্যে করোনা পজিটিভ ছিলেন ১৮৭ জন। বাকি ৪৪৬ জন মারা গেছেন উপসর্গ নিয়ে।

বরিশাল বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক শ্যামল কৃষ্ণ মণ্ডল প্রথম আলোকে বলেন, করোনা সংক্রমণের হার কয়েক দিন ধরে কিছুটা কম। এর পেছনে সর্বাত্মক লকডাউনের সুফল রয়েছে। তবে সংক্রমণের নিম্নমুখী অবস্থা ধরে রাখতে হলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কোনো বিকল্প নেই।

শ্যামল কৃষ্ণ মণ্ডল আরও বলেন, ঈদ উপলক্ষে মানুষের অবাধ চলাচল এবং স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে গ্রামে ফেরার বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ আছে। আরও সপ্তাহখানেক গেলে হয়তো এটা বোঝা যাবে। তবে প্রত্যেকেরই উচিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন