default-image

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার আগানগর ডিগ্রি কলেজের ইংরেজি বিভাগের এক প্রভাষক (৫০) আজ বৃহস্পতিবার ভোর ৫টা ৩০ মিনিটে করোনার উপসর্গ নিয়ে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন।

ওই শিক্ষক ছয় বছরের এক ছেলে ও স্ত্রী রেখে গেছেন। তাঁর বাড়ি মাদারীপুর জেলায়। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন ও স্যার এফ রহমান হলের ছাত্রলীগের সদস্য ছিলেন।

আগানগর কলেজের অধ্যক্ষ মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, ১৬ জুন কুমিল্লা নগরের কোটবাড়ী ভাড়া বাসা থেকে ওই শিক্ষককে নিউমোনিয়াজনিত কারণে কুমিল্লা কোভিড-১৯ হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। গতকাল বুধবার সকালে তাঁকে আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। এরপর তাঁর নমুনা সংগ্রহ করা হয়। নিউমোনিয়ার সঙ্গে তাঁর করোনার উপসর্গ জ্বর ও শ্বাসকষ্ট ছিল। এরই মধ্যে আজ ভোর সাড়ে পাঁচটায় তিনি মারা যান। পরে পরিবারের সদস্যরা লাশ নিয়ে যান গ্রামের বাড়িতে।

অধ্যক্ষ আরও জানান, ওই শিক্ষক ১৯৯৯ সালে আগানগর ডিগ্রি কলেজে ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক পদে যোগদান করেন। তিনি কলেজের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক ছিলেন।

ওই শিক্ষকের সহপাঠী কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের উপপরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (সনদ) মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘গত দুই দিন সব ধরনের চেষ্টা করে আমরা ব্যর্থ হলাম। বিশ্ববিদ্যালয়জীবনে আমরা একসঙ্গে নানা ধরনের আন্দোলন-সংগ্রামে ছিলাম। তাঁর পরিবারের পাশে এখন আমাদের থাকতে হবে। তিনি সাদামাটা জীবন যাপন করতেন।’

ওই শিক্ষকের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন কুমিল্লা-৮ (বরুড়া) আসনের সাংসদ ও আগানগর ডিগ্রি কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি নাছিমুল আলম চৌধুরী।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0