default-image

কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার পালপাড়া এলাকায় বসতঘর থেকে রোকসানা বেগম (২৫) নামের এক গৃহবধূর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার বিকেল চারটায় লাশ উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর থেকে স্বামী দেলোয়ার হোসেন পলাতক। রোকসানার শরীরে অন্তত পাঁচটি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

নিহত রোখসানার এক মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। তিনি কুমিল্লা নগরের কালিয়াজুরি এলাকার আবদুল মান্নানের মেয়ে। রোখসানা নগরের একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কর্মী ছিলেন। স্বামী দেলোয়ার হোসেন পালপাড়া এলাকার আবদুল গফুরের ছেলে এবং পেশায় একজন পরিবহনশ্রমিক।

নিহতের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দেলোয়ারের সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় রোকসানা বেগম কালিয়াজুরি এলাকায় সন্তানদের নিয়ে আলাদা বাসায় ভাড়া থাকতেন। দেলোয়ার পালপাড়ার বাড়িতে থাকতেন। মাঝেমধ্যে রোখসানা ওই বাড়িতে আসা–যাওয়া করতেন। বৃহস্পতিবার রাতেও তিনি দেলোয়ারের বাড়িতে যান। এরপর থেকেই রোকসানার খোঁজ পাচ্ছিল না সন্তানেরা। আজ বিকেলে বাড়ির লোকজন রোকসানার লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন।

কোতোয়ালি মডেল থানার ছত্রখিল ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) শরীফ রহমান বলেন, মরদেহে ধারালো অস্ত্র দিয়ে করা পাঁচটি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পিঠে ও হাতের নিচে এ আঘাত করা হয়। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী দেলোয়ার পলাতক। মরদেহ উদ্ধার করে কোতোয়ালি থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। শনিবার ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন