রংপুরের লক্ষ্মীটারি ইউনিয়নে স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধ নির্মাণ করছেন স্থানীয় লোকজন। সম্প্রতি ইউনিয়নের সংকরদহ এলাকায়।
রংপুরের লক্ষ্মীটারি ইউনিয়নে স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধ নির্মাণ করছেন স্থানীয় লোকজন। সম্প্রতি ইউনিয়নের সংকরদহ এলাকায়।প্রথম আলো

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় তিস্তা নদীর ভাঙন থেকে আবাদি জমিসহ বসতভিটা রক্ষার জন্য পাঁচটি গ্রামের বাসিন্দারা নিজেদের উদ্যোগে বাঁধ নির্মাণ করছেন। প্রায় সাড়ে তিন কিলোমিটার দীর্ঘ বাঁধ নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৩ লাখ টাকা। স্বেচ্ছাশ্রম ও নিজস্ব অর্থায়নে এই বাঁধ নির্মাণের কাজ চলছে।

চলতি বছরসহ গত দুই বছরে তিস্তা নদীর ভাঙনে গঙ্গাচড়া উপজেলার লক্ষ্মীটারি ইউনিয়নের নদীতীরবর্তী পাঁচটি গ্রামের প্রায় চার শ পরিবারের বসতভিটা, আবাদি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়। নদীর ভাঙনে অনেক পরিবার নিঃস্ব হয়ে পড়েছে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য ও এলাকার কয়েক শ একর আবাদি জমি রক্ষার জন্য ইউনিয়নবাসী নিজ উদ্যোগে ওই বাঁধ নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

লক্ষ্মীটারি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবদুল্লাহেল হাদী বলেন, গত ২০ ডিসেম্বর থেকে কাজ শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে সাড়ে তিন কিলোমিটার দীর্ঘ বাঁধের প্রায় পৌনে তিন কিলোমিটার অংশে মাটি ও বালু ফেলা হয়েছে। বাঁধের প্রস্থ নিচের অংশে ১০০ ফুট এবং ওপরে ৬০ ফুট। বাঁধের ভাঙন রোধে পাশে লাগানো হবে গাছ।

বাঁধ নির্মাণকাজে নিয়োজিত কয়েকজন জানান, এলাকার বাসিন্দাদের সঙ্গে একাত্মতা জানিয়ে স্থানীয় সাংসদ মসিউর রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমিন, ইউপি চেয়ারম্যান বাঁধ নির্মাণে আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন। বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দারাও নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী টাকা দিয়েছেন। এলাকার হাটবাজার থেকেও টাকা সংগ্রহ করা হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন