default-image

কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর থেকে তিনটি চোরাই মোটরসাইকেলসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। আজ সোমবার উপজেলার পৈলনপুর এলাকায় জুম্মান মিয়ার গ্যারেজ থেকে মোটরসাইকেলগুলো উদ্ধার করা হয়।

মোটরসাইকেল চুরির অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা হলেন জুম্মান মিয়া (৩২), মোমেন মিয়া (২৫) ও ছোটন মিয়া (২৬)। তাঁরা উপজেলার পশ্চিম বাজিতপুর এলাকার বাসিন্দা। র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়ের এবং স্কোয়াড কমান্ডার মোহাম্মদ বেলায়েত হোসাইন আজ ভোরে ওই অভিযান পরিচালনা করেন।

বিজ্ঞাপন

র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্প সূত্র জানায়, কিশোরগঞ্জ জেলায় বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল চোর চক্র সক্রিয় রয়েছে। চক্রগুলোর দৌরাত্ম্যে জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রায় প্রতিদিন কারও না কারও মোটরসাইকেল খোয়া যাচ্ছে। চোরাই মোটরসাইকেল কেনার জন্যও একাধিক চক্র রয়েছে। চক্রের সদস্যরা চুরি করে আনা মোটরসাইকেলগুলো কিশোরগঞ্জের বিভিন্ন চক্রের কাছে বিক্রি করে আসছে। এই অবস্থায় র‌্যাব একটি চক্রের সন্ধান পায়। গোয়েন্দা অনুসন্ধানে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার পর ভোররাত চারটার দিকে র‌্যাবের সদস্যরা জুম্মান মিয়ার গ্যারেজে অভিযান চালান।

র‌্যাবের ভৈরব ক্যাম্পের স্কোয়াড কমান্ডার মোহাম্মদ বেলায়েত হোসাইন বলেন, আটক হওয়া ব্যক্তিরা মোটরসাইকেল চোর চক্রের সক্রিয় সদস্য। উদ্ধার হওয়া মোটরসাইকেলগুলো এই চক্রের সদস্যরা চুরি করে এনেছেন। গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিদের আজ বিকেলে বাজিতপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে র‌্যাব বাদী হয়ে মামলা করেছে।

গ্যারেজমালিক জুম্মান মিয়া জানালেন, তিনটির মধ্যে একটি মোটরসাইকেল তিনি চালান। তবে কাগজপত্র নেই। মোটরসাইকেল কীভাবে পেলেন—এমন প্রশ্নের জবাবে জুম্মান বলেন, মোটরসাইকেলটি  সড়কে পড়ে ছিল। সেখান থেকে তিনি মোটরসাইকেলটি কুড়িয়ে এনেছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0