রিফাত শরীফের বাবার বাসায় পুলিশের নিরাপত্তা। আজ রাতে বরগুনা শহরের থানাপাড়া এলাকায়।
রিফাত শরীফের বাবার বাসায় পুলিশের নিরাপত্তা। আজ রাতে বরগুনা শহরের থানাপাড়া এলাকায়। প্রথম আলো

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির রায় ঘোষণা করা হবে আগামীকাল বুধবার। বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করবেন। রায়কে কেন্দ্র করে নিহত রিফাতের বাবার নিরাপত্তায় দুজন পুলিশ সদস্য নিয়োজিত করা হয়েছে। পুলিশি নিরাপত্তায় আনা হয়েছে রিফাতের বাড়িও।

বিজ্ঞাপন

পুলিশি নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রিফাতের বাবা মো. আবদুল হালিম দুলাল শরীফ। তিনি বলেন, ‘সার্বক্ষণিক নিরাপত্তায় বরগুনা জেলা পুলিশের দুজন অস্ত্রধারী সদস্য আমার সঙ্গে থাকছেন। এ ছাড়া বাড়িতে পুলিশ সদস্যরা ডিউটি করবেন।’ পুলিশ মোতায়েনের জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি আরও বলেন, ‘রায়কে কেন্দ্র করে আমাদের ওপর হামলার আশঙ্কা রয়েছে। আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছিলাম। সার্বক্ষণিক আমাদের সঙ্গে পুলিশ থাকায় আমাদের সে শঙ্কা দূর হয়েছে।’

বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহরম আলী বলেন, রিফাতের বাবা ও তাঁর পরিবারের নিরাপত্তায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। রিফাতের বাবার নিরাপত্তায় সার্বক্ষণিক দুজন গানম্যান তাঁর সঙ্গে থাকবেন।
গত বছরের ২৬ জুন সকালে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরীফকে তাঁর স্ত্রী আয়শার সামনে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে সন্ত্রাসীরা। তাঁকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর তিনি মারা যান। পরদিন রিফাতের বাবা আবদুল হালিম শরীফ বাদী হয়ে বরগুনা থানায় ১২ জনের নাম উল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা করেন। এ মামলায় একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে প্রধান সাক্ষী করা হয় রিফাতের স্ত্রী আয়শাকে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন