default-image

হবিগঞ্জ-বানিয়াচং আঞ্চলিক সড়কের রত্না এলাকায় এক গৃহবধূর (২২) লাশ রেখে পালিয়ে যাওয়ার সময় অনিক পাণ্ডে (৩০) নামের তাঁর কথিত স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ। ওই গৃহবধূর পরিবারের অভিযোগ, এটি হত্যাকাণ্ড। কিন্তু আটক হওয়া ব্যক্তি দাবি করেন, তাঁর স্ত্রী আত্মহত্যা করেছেন।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার এক গৃহবধূ তিন সপ্তাহ আগে সংসার ও দুই সন্তান রেখে একই উপজেলার কাস্টঘর এলাকার অনিক পাণ্ডেকে ভালোবেসে বাড়ি ছাড়েন। শনিবার দুপুরে অনিক ওই গৃহবধূর মাকে মুঠোফোনে জানান, তাঁর মেয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এ সময় ওই গৃহবধূর মা অনিককে অনুরোধ করেন তিনি যেন লাশ নিয়ে তাঁদের বাড়িতে আসেন। সে অনুযায়ী অনিক লাশ নিয়ে বানিয়াচং উপজেলা থেকে রওয়ানা হলেও তিনি হবিগঞ্জ-বানিয়াচং আঞ্চলিক সড়কের রত্না এলাকার পাশে ওই গৃহবধূর লাশ রেখে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় আশপাশের লোকজন অনিক পাণ্ডেকে আটক করে পুলিশে দেন। একই সময় পুলিশ ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

বিজ্ঞাপন

আটক ব্যক্তি পুলিশের কাছে দাবি করেন, তাঁর স্ত্রী সিলিং ফ্যানের সঙ্গে রশি ঝুলিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। কিন্তু নিহতের মা অভিযোগ করেন, তাঁর মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে।
বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরান হোসেন বলেন, ওই গৃহবধূর লাশের গলায় কালো দাগের চিহ্ন রয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর ওই নারীর মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে। আটক ব্যক্তিকে থানায় রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

মন্তব্য পড়ুন 0