পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, দত্তপুর গ্রামের মোশাহিদ মিয়া হবিগঞ্জ শহরে ভাঙারির ব্যবসা করেন। তাঁর দোকানে কর্মচারী হিসেবে থাকতেন হাফিজুল ইসলাম নামে তাঁর এক ভাতিজা। সম্প্রতি হাফিজুলের বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ আনেন মোশাহিদ। এ নিয়ে আজ রোববার দুপুরে মোশাহিদের বাড়িতে সালিস বসে। সালিস চলাকালে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে দুই পক্ষ লাঠিসোঁটা ও বল্লম নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় মোশাহিদসহ ১৫ জন আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত অবস্থায় মোশাহিদকে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে তিনি মারা যান।

বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এমরান হোসেন বলেন, ভাঙারি দোকানে চুরির ঘটনা নিয়ে সালিস বসে। সালিসে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে মোশাহিদ নিহত হন। তবে এই ঘটনায় এখনো মামলা হয়নি।