বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সাঘাটা থানা–পুলিশ ও হলদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইয়াকুব আলীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বেশ কিছুদিন ধরে হলদিয়া ইউনিয়নে যমুনা নদীর তীররক্ষা প্রকল্পের কাজ চলছে। এই প্রকল্পে ঠিকাদারি কাজে বালু সরবরাহ করছেন ইউনিয়নের রাজু মিয়া ও আলম মিয়া। বালু সরবরাহকে কেন্দ্র করে শনিবার দুপুরে রাজুর সঙ্গে আলম মিয়ার কথা–কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে।

এ সময় ছাবদেল মণ্ডল মারামারি ঠেকাতে গেলে রাজুর পক্ষের লোকজন তাঁর মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করেন। পরে তাঁকে ২০ ফুট উঁচু বাঁধ থেকে ধাক্কা দিয়ে নিচে ফেলে দেওয়া হয়।

গুরুতর আহত ছাবদেল মণ্ডলকে সাঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন সাঘাটা থানার ওসি মতিউর রহমান। তিনি মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, বালু সরবরাহ করা নিয়ে দ্বন্দ্বে ওই বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। মামলা দায়ের হলে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার ও তাঁদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত রাজু মিয়ার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তাঁর ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন