বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন সূত্রে জানা গেছে, বালিয়াঘাট গ্রামের বাসিন্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হোসেন খানের পরিবারের লোকজন নিজস্ব স্পিডবোটে করে গতকাল বিকেলে এলাকার বাদাঘাট বাজারে যান। এ সময় স্পিডবোটচালক বরুজ মিয়ার স্ত্রী ও মেয়ে তাঁদের সঙ্গে ছিলেন। বাজারে কেনাকাটা শেষে তাঁরা বাড়ি ফিরছিলেন। পথে রাত সাড়ে সাতটার দিকে পাটলাই নদের বালিয়াঘাট বিজিবি ক্যাম্পের কাছে পাথরবোঝাই বাল্কহেডের সঙ্গে স্পিডবোটের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে স্পিডবোটের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন এবং সেটি ডুবে যায়। এ সময় স্পিডবোটে থাকা অন্যরা সাঁতরে তীরে উঠলেও জোছনা বেগম ও তাঁর মেয়ে রুমি নিখোঁজ হয়। পরে লোকজন এসে প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে নদী থেকে তাঁদের লাশ উদ্ধার করেন। আহত যাত্রী রীনা বেগমকে (২৯) তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল লতিফ তরফদার এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন