default-image

সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপে এক কিশোরী বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাতে উপজেলার একটি গ্রামে অভিযান চালিয়ে বিয়েটি বন্ধ করা হয়। এ সময় বর ও কনের বাবাকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আনিসুর রহমানের নেতৃত্বে ওই অভিযান চালানো হয়।

বিজ্ঞাপন

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, ওই মেয়ে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী (১৪)। ছেলে তাঁতশ্রমিক (২১)। শুক্রবার মেয়ের বাড়িতে বিয়ের আয়োজন চলছিল। গোপনে এ সংবাদ পেয়ে সেখানে অভিযান চালান ভ্রাম্যমাণ আদালত। মেয়েটি অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালত বিয়ের আয়োজন বন্ধ করে দেন। বর ও কনের বাবাকে পাঁচ হাজার করে টাকা জরিমানা করা হয়। বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে বোঝালে তাঁরা ভুল বুঝতে পারেন। তাঁরা ছেলেমেয়েদের প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না বলে মুচলেকা দেন। ভ্রাম্যমাণ আদালতকে সহায়তা করেন পেশকার মো. হাফিজ উদ্দিন ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা।

জানতে চাইলে ইউএনও মো. আনিসুর রহমান আজ শনিবার প্রথম আলোকে বলেন, বাল্যবিবাহবিরোধী অভিযান চলতে থাকবে। বেলকুচি উপজেলাকে বাল্যবিবাহমুক্ত করতে সবার সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

মন্তব্য পড়ুন 0