স্কুলের ভ্যানে থাকা ছাত্র মো. নাফিজুর রহমান বলে, ‘বাসটি আমাদের ভ্যানটিকে অতিক্রম করতে গেলে সামনে হঠাৎ করে একটি মাইক্রোবাস এসে পড়ে। এ সময় কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই বাসটি আমাদের ভ্যানটিকে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে ভ্যানটি উল্টে গেলে আমাদের কয়েকজনের হাত-পা কেটে ও ছিলে যায়।’

সাইসাইন কলেজিয়েট স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. নুরতাজ আলম রবিন বলেন, ‘আল্লাহর রহমতে অল্পের জন্য আমার ১১ জন ছাত্রছাত্রী প্রাণে বেঁচে গেছে। ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে বড় গাড়িগুলো বেপরোয়াভাবে চলাচল করার কারণে মাঝেমধ্যেই এ ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনা এড়াতে ভবিষ্যতে স্কুলভ্যানের পরিবর্তে চার চাকার লেগুনার ব্যবস্থা করা হবে।’

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার মজুমদার বলেন, ‘ঘটনাটি দুঃখজনক। আমাকে স্কুল কর্তৃপক্ষ জানালে বাসটি জব্দ করতে পারতাম। এরপরও খোঁজ নিয়ে দেখছি।’