বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাড়িতে বসে ভূমি অধিগ্রহণের চেক পেয়ে খুশি শাহিনা পারভীন। তিনি বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ থাকায় জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল মহোদয় নির্দেশনায় আজ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা বাড়িতে এসে চেক দিলেন। জেলা প্রশাসনের ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগ চালু থাকলে জমি অধিগ্রহণের টাকা পাওয়ার ক্ষেত্রে জমির মালিকেরা হয়রানির হাত থেকে বাঁচবেন।’

শাহিনা পারভীন আরও বলেন, ‘এর আগে এই টাকার জন্য অনেক ঘুরতে হতো। অনেক কাজ নিজেরা বুঝতে পারতাম না। বাধ্য হয়ে দালালদের শরণাপন্ন হতে হতো। ফলে এমন একটি সহজ পদ্ধতিতে ভূমি অধিগ্রহণের টাকা পাওয়া যায়, আমার জানা ছিল না।’

এখন থেকে ভূমি অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরণের টাকা জমির মালিকেরা ঘরে বসেই পেয়ে যাবেন বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল। তিনি বলেন, এই টাকা পেতে আর দিনের পর দিন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ছুটতে হবে না। পড়তে হবে না দালালদের খপ্পরে।

জেলা প্রশাসক আরও বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আমরা উন্নয়ন প্রকল্পে অধিগ্রহণ করা জমির মালিকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ক্ষতিপূরণের চেক প্রদান করছি। এটা অব্যাহত থাকবে। এ টাকা প্রদানের ক্ষেত্রে হয়রানি ও দালালমুক্ত থাকবে জেলা প্রশাসন।’ এ ছাড়া জেলা প্রশাসনের কোনো ব্যক্তি এ ধরনের অনিয়মের সঙ্গে জড়িত থাকলে ব্যবস্থা নেওয়ারও আশ্বাস দেন তিনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন