default-image

বকেয়া ভাড়া ও পাওনা টাকার জের ধরে নারায়ণগঞ্জ শহরের নলুয়াপাড়া এলাকায় মেহেদী হাসান (৫২) নামের এক মুরগি বিক্রেতাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। তবে এ ঘটনায় আজ শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত অভিযুক্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এ ছাড়া এখন পর্যন্ত মামলাও হয়নি।
মেহেদী হাসান (৫২) ওই এলাকার মৃত ফজল মিয়ার ছেলে।
মেহেদী হাসানের স্বজন ও কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মেহেদী হাসানের ছোট ছেলে আল আমিন শহরের নলুয়াপাড়া এলাকার মো. রানার বাড়িতে মাসিক তিন হাজার টাকায় ভাড়া থাকতেন। গত মাসে আল আমিনের ১৫০০ টাকা ভাড়া বকেয়া থাকে। এর জের ধরে আল আমিনের বাবার মুরগির দোকান থেকে রানা গতকাল রাতে মুরগি নিয়ে যেতে চান। মেহেদী মুরগি দিতে অস্বীকার করেন। পরে আল আমিনকে ডেকে এনে মারধর করেন রানা। এ সময় মেহেদী খবর পেয়ে তাতে বাধা দেন। এ সময় রানাসহ তাঁর স্বজনেরা মেহেদীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান জানান, বাড়িভাড়ার টাকা বাকি ছিল। ভাড়ার এ টাকাকে কেন্দ্র করে বাড়িওয়ালা মেহেদী হাসানকে ধাক্কা দিলে তিনি পড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হন। পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁর মৃত্যু হয়। তাঁর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পর থেকে বাড়ির মালিকসহ জড়িতে ব্যক্তিরা পলাতক। তাঁদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় মামলারও প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য পড়ুন 0