default-image

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থীর কর্মী–সমর্থকদের বিরুদ্ধে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ করেছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী আলমগীর চৌধুরী ওরফে বাদশা। নির্বাচনে ইভিএম নিয়ে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।

এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে আজ বৃহস্পতিবার সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন আলমগীর চৌধুরী।

অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সুদীপ কুমার রায় বলেন, লিখিত অভিযোগটি থানায় পাঠানো হবে।

লিখিত অভিযোগে বিএনপির দলীয় মেয়র পদপ্রার্থী আলমগীর চৌধুরী বলেছেন, আওয়ামী লীগের দলীয় মেয়র প্রার্থী শহীদুল আলম চৌধুরী ও বর্তমান মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী এবং তাঁদের কর্মী-সমর্থকেরা বিভিন্ন পথসভায়, ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন ও হুমকি দিচ্ছেন। তাঁরা এ–ও বলছেন, ধানের শীষে ভোট দিলে তাঁরা ছবি তুলে রাখবেন। পরে তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন। ইভিএমে যে প্রতীকেই ভোট দেওয়া হোক না কেন, তার বেশির ভাগই চলে যাবে নৌকা প্রতীকে। এসব মিথ্যা কথা ছড়িয়ে সাধারণ ও অল্প শিক্ষিত ভোটারদের বিভ্রান্ত করা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

আলমগীর চৌধুরী বলেন, ‘নির্বাচনে আমার এজেন্ট থাকতে দেবে না বলে আওয়ামী লীগের দলীয় মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী বলে বেড়াচ্ছেন। নির্বাচনের দিন পৌরসভার বাইরে থেকে বিপুলসংখ্যক লোকজন জড়ো করবেন বলেও প্রচার করা হচ্ছে। এতে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন নিয়ে জনমনে শঙ্কা তৈরি হয়েছে।’

আওয়ামী লীগের দলীয় মেয়র প্রার্থী শহীদুল আলম চৌধুরী ও বর্তমান মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী এসব অভিযোগকে অসত্য ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন। তাঁরা বলছেন, নৌকার গণজোয়ার দেখে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর মাথা খারাপ হয়েছে। এ কারণে তিনি মিথ্যা অভিযোগ করছেন।

জয়পুরহাট জেলা প্রশাসক মো. শরীফুল ইসলাম বলেন, প্রশাসন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তাঁর কাছে কোনো প্রার্থী অভিযোগ করেননি। রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, অভিযোগের বিষয়ে জানালে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

১৪ ফেব্রুয়ারি আক্কেলপুর পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। মোট ভোটার সংখ্যা ২০ হাজার ৩৯৭ জন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন