বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হাসপাতালটির উপপরিচালক বখতেয়ার আলম প্রথম আলোকে বলেন, সম্প্রতি হাসপাতালের নতুন জেনারেটর আসার পর সেটি আইসিইউ ইউনিটে সংযোগ দেওয়া হয়েছে, যাতে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে পারে। কিন্তু ভেন্টিলেটর তাঁরা এখনো পাননি। এখন হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলা দিয়ে অক্সিজেন সরবরাহের মাধ্যমে আইসিইউতে রোগীদের চিকিৎসাসেবা দেওয়া হবে। আইসিইউতে ভেন্টিলেটর না হলেও চিকিৎসা দেওয়া যাবে বলে জানান তিনি।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, গতকালও হাসপাতালটিতে ৩৩ জন রোগী ভর্তি ছিলেন। শুক্রবার রাতে একজন রোগী মারা যান। ওই রোগী আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন না।

হাসপাতালটির আইসিইউ ইউনিটের প্রধান মামুনুর রশীদ বলেন, আইসিইউ সেবা দেওয়ার জন্য তাঁদের হাসপাতালের ছয়জন চিকিৎসা কর্মকর্তা, আটজন কনসালট্যান্ট, তিনজন অবেদনবিদ ও নয়জন নার্সকে প্রশিক্ষণের জন্য চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। প্রশিক্ষণ শেষে তাঁরা হাসপাতালে ফিরেছেন। এখন আইসিইউতে রোগী ভর্তি করাতে পারবেন। করোনায় আক্রান্ত রোগীদের বেশির ভাগ বাড়িতে চিকিৎসা নেন। কিছু রোগীকে এমন সংকটাপন্ন অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়, যা চিকিৎসকদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়।

চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে গতকাল প্রকাশিত তথ্যে দেখা গেছে, সীতাকুণ্ডে এক দিনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩০ জন। মারা গেছেন একজন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন