বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রথম আলো: তাঁরা কি তৈমুর আলমের পক্ষে নির্বাচনে কাজ করবেন?

মামুন মাহমুদ: যেহেতু দল সিদ্ধান্ত নিয়েছে এ ধরনের নির্বাচনে যাচ্ছে না, সেহেতু দলের নেতা–কর্মীরা দলের পালস বুঝতে পেরে দলের সিদ্ধান্তের পক্ষে অবস্থান নেবেন। ব্যক্তি কারও পক্ষে তো দল অবস্থান নেয়নি। দল নির্বাচনে যায়নি, ফলে দলের নেতা–কর্মীরা দলের সিদ্ধান্তের সঙ্গে থাকবেন, এটাই আমার বিশ্বাস।

প্রথম আলো: তৈমুর যদি জিতে যান, দল কি তাঁকে গ্রহণ করবে?

মামুন মাহমুদ: দল তৈমুরকে গ্রহণ করবে কি না, এ ধরনের সিদ্ধান্ত আপাতত নেই। যেহেতু তৈমুর দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে আছেন; সেহেতু দল চুপ থাকতে পারে না। দলের সিদ্ধান্তের পরিপন্থী জায়গায় অবস্থান নিলে দল অবশ্যই চুপ থাকবে না।

প্রথম আলো: ২০১১ সালে ভোটের পাঁচ ঘণ্টা আগে তৈমুরকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল?‌ এবার তো তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী। দল তাঁকে সমর্থন দিতে পারত...

মামুন মাহমুদ: দল তো এখানে তৈমুরকে প্রার্থী হতে বলেনি। তাই দল সমর্থন করেনি।

প্রথম আলো: দলীয় চাপ বা অন্য কোনো কারণে নির্বাচন থেকে তৈমুরের সরে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে?

মামুন মাহমুদ: তৈমুর সরে যাবেন কি না, সেটা উনিই বলতে পারবেন। দল তো তাঁকে প্রার্থী করেনি। যেহেতু তিনি স্বতন্ত্র নির্বাচন করছেন, তাই তিনি নির্বাচনের মাঠে থাকতে পারেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন