বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ সোমবার দুপুরে প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. মাজহারুল ইসলাম। তিনি বলেন, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় জেলা আওয়ামী লীগের জরুরি সভা হয়। ওই সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম বজলুল কাদেরকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে এনে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়। গতকাল রোববার জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আশরাফ আলী খান স্বাক্ষরিত এ–সম্পর্কিত একটি চিঠি এস এম বজলুল কাদেরকে পাঠানো হয়েছে। তাঁকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

তাঁকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে এস এম বজলুল কাদের আজ দুপুরে প্রথম আলোকে জানান, তিনি বিষয়টি শুনেছেন। তবে এখনো চিঠি হাতে পাননি।

শুক্রবার রাতে জেলা আওয়ামী লীগের জরুরি ওই সভায় অংশ নেওয়া বেশ কয়েকজন নেতা জানান, দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে সদর উপজেলার লক্ষ্মীগঞ্জ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে দুজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাঁদের মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আজহারুল ইসলাম। অন্যজন বর্তমান চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম শফিকুল কাদের। শফিকুল কাদের সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম বজলুল কাদেরের ছেলে। এস এম বজলুল কাদেরের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীর নির্বাচনী কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ না করে তাঁর ছেলের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা ও নির্বাচন পরিচালনা করছেন। এ কারণে তাঁকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন