বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

টেকনাফ–২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল ফয়সল হাসান খান প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, আজ ভোরে হ্নীলা সীমান্ত ফাঁড়ির একটি টহল দল নাফ নদীর ১ নম্বর স্লুইসগেট এলাকায় টহল দিচ্ছিল। মিয়ানমার থেকে মাদকের একটি চালান বাংলাদেশে ঢুকবে—এমন তথ্যের ভিত্তিতে বিজিবি সদস্যরা বেড়িবাঁধ এলাকায় নজরদারি জোরদার করেন।

ভোররাত চারটায় দুজন একটি ব্যাগ নিয়ে বেড়িবাঁধের দিকে আসছিলেন। এ সময় বিজিবি সদস্যরা তাঁদের থামার জন্য সংকেত দিলে দুই ব্যক্তি ব্যাগটি ফেলে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে মিয়ানমারের শূন্যরেখা অতিক্রম করে পালিয়ে যান। পরে ওই ব্যাগ তল্লাশি করে ৪০ হাজার ইয়াবা পাওয়া যায়। তবে এ ঘটনায় এখনো কাউকে আটক করা যায়নি।

লে. কর্নেল ফয়সল হাসান খান বলেন, উদ্ধার হওয়া ইয়াবাগুলো ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে। পরবর্তী সময়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন